চট্টগ্রামে গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত হয়েছে ৭৮৩ জন। মারা গেছেন ১০ জন

চট্টগ্রামে করোনা দিনের পর দিন ভয়ঙ্কর ও আগ্রাসী রূপে হাজির হচ্ছে। শনাক্তের সংখ্যায় সব রেকর্ড ভেঙে গত ২৪ ঘণ্টায় ৯ জুলাই আক্রান্ত হয়েছে ৭৮৩ জন। মারা গেছেন ১০ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় ২ হাজার ১শ’ জনের নমুনা পরীক্ষায় নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৭৭৮ জন। শতকরা হিসাবে এ হার ৩৭ দশমিক ২৮ শতাংশ।

নতুন ১০ জনসহ এ নিয়ে মোট মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৭৫৪ জনে। এ পর্যন্ত চট্টগ্রামে করোনায় মোট শনাক্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৬৩ হাজার ৬৯৬ জনে। সিভিল সার্জন কার্যালয় থেকে  ৮ জুলাই দিবাগত রাতে প্রকাশিত প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

একইদিনে করোনা কেড়ে নেওয়া ১০ জনের মধ্যে নগরের ২ জন ও উপজেলায় ৮ জন। এ নিয়ে মোট মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৭৫৪ জনে। আক্রান্ত ৭৮৩ জনের মধ্যে ৫১০ জন নগরের ও ২৭৩ জন উপজেলার বাসিন্দা। এ পর্যন্ত চট্টগ্রামে করোনায় মোট শনাক্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৬৩ হাজার ৬৯৬ জনে।

এই দিন ১০টি ল্যাবে নমুনা পরীক্ষা করা হয়। ল্যাবগুলোর মধ্যে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ল্যাবে ১৫৪ জনের মধ্যে ৭৬ জন, বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ট্রপিক্যাল অ্যান্ড ইনফেকশাস ডিজিজেসে (বিআইটিআইডি) ৪৭০ জনের মধ্যে ১৭২ জন, চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ (চমেক) ল্যাবে ৩১৩ জনের মধ্যে ১০৭ জন, চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি অ্যান্ড অ্যানিম্যাল সায়েন্সেস বিশ্ববিদ্যালয় (সিভাসু) ল্যাবে ২০৬ জনের মধ্যে ৭৫ জনের করোনা শনাক্ত হয়।

এছাড়া, ৫১৯ জনের এন্টিজেন টেস্টে ১৮৯ জন, ইম্পেরিয়াল হাসপাতালে ১৪০ জনের মধ্যে ৬৫ জন, শেভরণ ক্লিনিক্যাল ল্যাবরেটরিতে ১৫৬ জনের মধ্যে ৪২ জন, চট্টগ্রাম মা ও শিশু হাসপাতাল ল্যাবে ৩৩ জনের মধ্যে ২২ জন, জেনারেল হাসপাতালের রিজিওনাল টিবি রেফারেল ল্যাবরেটরিতে (আরটিআরএল) ৪০ জনের মধ্যে ১৭ ও মেডিকেল সেন্টারে ৬৯ জনের মধ্যে ১৮ জনের করোনা শনাক্ত হয়।

এদিন উপজেলার মধ্যে আক্রান্তের সংখ্যা— লোহাগাড়ায় ৫ জন, সাতকানিয়ায় ১২ জন, বাঁশখালীতে ৭ জন, আনোয়ারায় ১৯ জন, চন্দনাইশে ৩ জন, পটিয়ায় ১৬ জন, বোয়ালখালীতে ৩ জন, রাঙ্গুনিয়ায় ২৩ জন, রাউজানে ২৮ জন, ফটিকছড়িতে ২০ জন, হাটহাজারীতে ৪৩ জন, সীতাকুণ্ডে ৪২ জন, মিরসরাইয়ে ৩৭ জন ও সন্দ্বীপে ১৫ জন।

 

About bdsomoy