রূপগঞ্জে আগুনে অন্তত ৫০ মৃত্যু

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে আগ্নিকাণ্ডে ৫০ জনের মৃত্যু হয়েছে। ৯ জুলাই দুপুর ১টার দিকে গণমাধ্যমকে এ তথ্য জানিয়েছে ফায়ার সার্ভিস। নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে আগুন লাগা কারাখানাটি থেকে ২০টি মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। রূপগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) শাহ নুসরাত জাহান জানিয়েছেন, কারাখানাটি থেকে লাশ বের করা হচ্ছে। এখন চূড়ান্তভাবে বলা যাচ্ছে না ঠিক কত জন মারা গেছেন।

এর আগে, আগুনে অন্তত ৫০ জনের হয়েছে বলে জানিয়েছে ফায়ার সার্ভিস। ০৯ জুলাই গণামাধ্যমকে এই তথ্য জানিয়েছে ফায়ার সার্ভিস। গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৭টায় উপজেলার কর্ণগোপ এলাকার হাসেম ফুড অ্যান্ড বেভারেজ কারখানার নিচ তলায় আগুনের সূত্রপাত হয়। মুহূর্তে আগুন চারদিকে ছড়িয়ে পড়ে।
এদিকে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে ভবনে আটকাপড়ে নিখোঁজ হওয়া শ্রমিকদের উদ্ধারে দেরি হওয়ায় পুলিশ ও সাংবাদিকদের উপর দফায় দফায় হামলা চালিয়েছে বিক্ষুব্ধ শ্রমিকরা। শুক্রবার বেলা ১১টার থেকে থেকে সাড়ে ১১টায় পর্যন্ত প্রায় আধা ঘন্টা সময় এলাকা রণক্ষেত্রে পরিণত হয়। পুলিশের উপর এলোপাতাড়ি ইট-পাটকেল নিক্ষেপসহ ধাওয়া-পাল্টার ঘটনা ঘটে। পরে অতিরিক্ত পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।
এদিকে সংঘর্ষ চলাকালে কারখানার প্রধান ফটকের সামনে আনসার ক্যাম্পে হামলা চালিয়ে তিনটি সর্ট গান লুট করে। পরে দুইটি উদ্ধার হলেও একটি এখনো উদ্ধার হয়নি।
অগ্নিকাণ্ডে ছয় তলা ভবনটির কয়েকটি ফ্লোরে অন্তত ৪৫ জন শ্রমিক আটকা পড়ে নিখোঁজ রয়েছেন বলে স্বজনরা দাবি করছেন।

এদিকে দুপুর দেড়টার দিকে ভবনের ভেতর থেকে প্যাকেট করা লাশ বের করা শুরু করে ফায়ার সার্ভিসের উদ্ধার কর্মীরা।
এ সময় স্বজনরা, এলাকাবাসী ও বহিরাগতরা ধাওয়া করলে পুলিশ তাদের ছত্র ভঙ্গ করতে দফায় দফায় সর্টগানের গুলি ছু্ঁড়ে। এ পর্যন্ত দুইটি এম্বুলেন্সে ১৮ টি লাশ তোলা হয়েছে। লাশবাহী অ্যাম্বুলেন্সগুলো ঢাকা মেডিকেলের উদ্দেশ্যে পাঠানো হচ্ছে। লাশ উদ্ধারের কাজের জন্য আরো বেশ কয়েকটা লাশবাহী অ্যাম্বুলেন্স রেডি রাখা হয়েছে। 

About bdsomoy