খুলনা অঞ্চলে করোনার কারণে দীর্ঘ হচ্ছে মৃত্যুর মিছিল

খুলনা অঞ্চলে করোনার কারণে দীর্ঘ হচ্ছে মৃত্যুর মিছিল। ৭ জুলাই জানানো হয়, বিভাগের সরকারি-বেসরকারি চার হাসপাতালে একদিনে সর্বোচ্চ ২২ জন রোগী মারা গেছেন। এর মধ্যে ২১ জন ছিলেন করোনা পজিটিভ ও একজন উপসর্গের রোগী। সকাল ৮টা পর্যন্ত গত ২৪ ঘণ্টায় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তাদের মৃত্যু হয়। মৃত করোনা পজিটিভদের মধ্যে খুলনার রয়েছেন ১০ জন। বাগেরহাট ও যশোরের চার জন করে, নড়াইলের দুই ও সাতক্ষীরার একজন রোগী রয়েছেন।

খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের করোনা ইউনিটের মুখপাত্র ডা. সুহাস রঞ্জন হালদার জানান, হাসপাতালের ২০০ বেডে সকাল ৮টা পর্যন্ত ১৮৯ জন ভর্তি রয়েছেন। রেড জোনে ১১৬ জন, ইয়োলো জোনে ৩৪ জন, আইসিইউতে ১৯ জন ও এইচডিইউতে ২০ জন চিকিৎসা নিচ্ছেন। নতুন ভর্তি হয়েছেন ৪১ জন। ছাড়পত্র নিয়েছেন ৩২ জন। মারা গেছেন ১০ জন। এর মধ্যে একজন করোনা উপসর্গের রোগী ও ৯ জন করোনা পজিটিভ।

খুলনা ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালের করোনা ইউনিটের মুখপাত্র ডা. কাজী আবু রাশেদ জানান, হাসপাতালের ৮০ বেডে সকাল ৮টা পর্যন্ত ভর্তি রোগী আছেন ৬৫ জন। পুরুষ ৩২ ও মহিলা ৩৩ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন ভর্তি হয়েছেন ২৬ জন। পুরুষ ১২ ও মহিলা ১৪ জন। ছাড়পত্র নিয়েছেন ২৫ জন, মারা গেছেন পাঁচ জন।

খুলনার শহীদ শেখ আবু নাসের বিশেষায়িত হাসপাতালের করোনা ইউনিটের মুখপাত্র ডা. প্রকাশ চন্দ্র দেবনাথ বলেন, হাসপাতালের ৪৫ বেডে সকাল সোয়া ৮টা পর্যন্ত ৪৩ জন পজিটিভ ভর্তি রয়েছেন। নতুন ভর্তি হয়েছেন চার জন, ছাড়পত্র নিয়েছেন পাঁচ জন। মারা গেছেন দুই জন।

খুলনার বেসরকারি গাজী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ডা. গাজী মিজানুর রহমান জানান, ১৫০ বেডের বিপরীতে সকাল সাড়ে ৮টা পর্যন্ত ভর্তি আছেন ১৩১ জন। নতুন ভর্তি ২৭ জন, ছাড়পত্র নিয়েছেন ২৫ জন। আইসিইউতে ভর্তি আছেন ৮ জন ও এইচডিইউতে চিকিৎসা নিচ্ছেন ৯ রোগী। আর  চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন পাঁচ জন।

About bdsomoy