সোমবার, ফেব্রুয়ারি ২৬, ২০২৪
প্রচ্ছদইন্টারভিউসমলিঙ্গ বিয়ে নিয়ে মার্কিন সুপ্রিম কোর্টের দু'টি রায়

সমলিঙ্গ বিয়ে নিয়ে মার্কিন সুপ্রিম কোর্টের দু’টি রায়

যুক্তরাষ্ট্রের সুপ্রিম কোর্ট সমকামী দম্পতিদের কেন্দ্রীয় সরকারের সুবিধা থেকে বঞ্চিত রাখার একটি আইন বাতিল এবং ক্যালিফোর্নিয়ায় সমলিঙ্গ বিয়ের পথ প্রশস্ত করেছে। সুপ্রিম কোর্টের এ রায় দুইটি সমলিঙ্গের বিয়ের সমর্থকদের জন্য একটি ঐতিহাসিক সাফল্য। আজ বৃহস্পতিবার সংবাদ সংস্থা বিবিসি এই খবর নিশ্চিত করেছে।

বিচারপতিগণ বলেন, “ডোমা” হিসাবে পরিচিত “ডিফেন্স অফ ম্যারেজ অ্যাক্ট” এ সমলিঙ্গ দম্পতিদের প্রতি বৈষম্য করা হয়েছে। বিচাপতিগণ “প্রপজিশন এইট” বাতিলে অস্বীকৃতি জানান। এ প্রস্তাবে ক্যালিফোর্নিয়ায় সমকামী বিয়ে নিষিদ্ধ করা হয়েছিল। এর মানে এই রাজ্যে সমকামী বিয়ে বৈধ ককরা হলো।

জনমত জরিপে দেখা গেছে যে, অধিকাংশ আমেরিকান সমলিঙ্গ বিয়েকে সমর্থন করছে। সুপ্রিম কোর্টের বুধবারের রায় আমেরিকার ৩০টির বেশি রাজ্যের সংবিধানে সমলিঙ্গ বিয়ে নিষিদ্ধের আইনে কোনো প্রভাব ফেলবে না।

ক্যালিফোর্নিয়ায় সমকামী বিয়ে বৈধতা লাভ করায় যুক্তরাষ্ট্রের মোট ১৩টি রাজ্য এবং ডিস্ট্রিক্ট অব কলম্বিয়ায় এ ব্যবস্থা আইনত স্বীকৃত হলো। ৫-৪ ভোটে গৃহীত সুপ্রিম কোর্টের এ রায়কে আদালতের বাইরে সমবেত সমকামী বিয়ের প্রায় এক হাজার সমর্থক অভিনন্দন জানায়।

ডিফেন্স অব ম্যারেজ অ্যাক্টে বলা হয়েছিল যে, বিয়ে হলে একজন পুরুষের সঙ্গে অন্য একজন মহিলার পবিত্র সামাজিক বন্ধন। ১৯৯৬ সালে মার্কিন কংগ্রেসে এ আইন পাস হয়। এ আইন অনুযায়ী রাজ্যেগুলোতে অনুমোদিত সমলিঙ্গ বিয়ে কেন্দ্রীয় সরকারের স্বীকৃতিপ্রাপ্ত নয়।

বিয়েকে একটি নাগরিক অধিকার হিসাবে বর্ণনা করে সমর্থকগণ বলছেন যে, যুক্তরাষ্ট্রে দুই ধরনের বিয়ের ব্যবস্থা থাকতে পারে না। দ্বিমুখী ব্যবস্থায় এক শ্রেণীর দম্পতি রাষ্ট্রের কাছ থেকে সুযোগ সুবিধা পাবে এবং আরেক শ্রেণী পাবে না। সমলিঙ্গের বিবাহিত দম্পতি সামাজিক নিরাপত্তা পেনসনসহ কেন্দ্রীয় সরকারের কাছ থেকে সুবিধা লাভের অযোগ্য।

“প্রপজিশন এইট”-এ বিয়েকে একজন পুরুষের সঙ্গে আরেকজন মহিলার পবিত্র সামজিক বন্ধন হিসাবে উল্লেখ করা হয়েছিল। ২০০৮ সালে ক্যালিফোর্নিয়ায় সুপ্রিম কোর্টের একটি রায়ের বিরুদ্ধে এ আইন অনুমোদন করা হয়। সুপ্রিম কোর্টের রায়ে সমলিঙ্গ বিয়ের অনুমতি দেওয়া হয়েছিল।

“ডোমা”র ব্যাপারে আদালরের রায়ের অর্থ হলো সমলিঙ্গ দম্পতিরা বিপরীত লিঙ্গের বিবাহিত দম্পতিদের মতো কেন্দ্রীয় সরকারের কাছে থেকে সমান সুযোগ-সুবিধা পাবে।

আরও পড়ুন

সর্বশেষ