ভূমধ্যসাগর থেকে বাংলাদেশিসহ ১৭৮ অভিবাসী উদ্ধার

ভূমধ্যসাগর থেকে বাংলাদেশিসহ ১৭৮ অভিবাসন প্রত্যাশী উদ্ধার করেছে তিউনিসিয়ার নৌবাহিনী। এছাড়া, আরও দুইজনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।

দেশটির কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, অভিবাসন প্রত্যাশীদের মধ্যে বাংলাদেশি, মিশরীয়, ইরিত্রিয়া, আইভরি কোস্ট, মালি, নাইজেরিয়া, সিরীয় এবং তিউনিসিয়ার নাগরিক রয়েছেন। ২৭ জুন তিউনিসিয়ার দক্ষিণ উপকূলে ৩টি পৃথক অভিযান চালিয়ে তাদের উদ্ধার করা হয়। অভিবাসন প্রত্যাশীরা লিবিয়া থেকে ইউরোপের উদ্দেশে রওয়ানা হয়েছিল বলে জানিয়েছেন তিউনিশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র মোহাম্মদ জাকরি।
তিনি বলেন, অভিবাসন প্রত্যাশীদের বহনকারী নৌকাটি ডুবের যাওয়ার মতো প্রচণ্ড ঝুঁকিতে ছিল।  ২৫ জুন দিনগত রাতে তারা লিবিয়ার জুয়ারা বন্দর থেকে যাত্রা শুরু করে।
৪৮ ঘণ্টার মধ্যে এটি দ্বিতীয় সর্বোচ্চ উদ্ধার। এর আগে গত ২৪ জুন ভূমধ্যসাগর থেকে ২৬৪ জন অভিবাসন প্রত্যাশীকে ভাসমান অবস্থায় উদ্ধার করা হয়। একই সঙ্গে উদ্ধার করা হয় মিসরের ৩ নাগরিককে।
উদ্ধার হওয়া বাংলাদেশি ও মিসরীয়রা লিবিয়া থেকে ভূমধ্যসাগর হয়ে ইতালির পথে রওনা হয়েছিলেন। উদ্ধার হওয়া ব্যক্তিদের পরে তিউনিসিয়ার দক্ষিণাঞ্চলীয় দ্বীপ জেরবারের একটি হোটেলে কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়।
জাতিসংঘের শরণার্থী সংস্থা ইউএনএইচসিআর-এর তথ্যমতে, চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে এপ্রিল পর্যন্ত ভূমধ্যসাগরে ১১ হাজার অভিবাসন প্রত্যাশীকে উদ্ধার করা হয়েছে। যা গত বছরের একই সময়ের চেয়ে ৭৩ শতাংশ বেশি। লিবিয়ায় বিদেশিদের অবমূল্যায়নের কারণে এ পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। জাতিসংঘের মতে, চলতি বছরের এক জানুয়ারি থেকে ৩১ মে পর্যন্ত ভূমধ্যসাগরে কমপক্ষে ৭৬০ অভিবাসন প্রত্যাশীর মৃত্যু হয়েছে।

About bdsomoy