রবিবার, মে ১৯, ২০২৪
প্রচ্ছদখেলার সময়ফের সেরা সাকিব

ফের সেরা সাকিব

sakibবর্ষসেরা ক্রীড়াবিদ হিসেবে চতুর্থবারের মতো ‘গ্রামীণফোন-প্রথম আলো’ বর্ষসেরার পুরস্কার পেলেন সাকিব আল হাসান। শনিবার বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানের মাধ্যমে এই পুরস্কার দেওয়া হয়। পাঠকের ভোটে সেরা ক্রিকেটার নির্বাচিত হয়েছেন নাসির হোসেন।

২০১২ সালের বর্ষসেরা রানার আপ হয়েছেন দুজন ক্রীড়াবিদ। বাংলাদেশ হকি দলের ফরোয়ার্ড রাসেল মাহমুদ জিমি ও ভারোত্তোলক বিদ্যুৎ কুমার রায়। বর্ষসেরা নারী ক্রীড়াবিদ নির্বাচিত হয়েছেন ভারোত্তোলক সাবিরা সুলতানা। ২০১২ সালের বর্ষসেরা উদীয়মান খেলোয়াড়ের পুরস্কারটা উঠেছে এনামুল হক বিজয়ের হাতে।

২০১২ সালের আজীবন সম্মাননা পেয়েছেন কিংবদন্তি ফুটবলার জহিরুল হক। ৫০ ও ৬০-এর দশকে দেশের ফুটবল অঙ্গন মাতিয়ে রাখতেন সাবেক এই খেলোয়াড়। ঘরোয়া ফুটবলে তিনি খেলতেন মোহামেডানের হয়ে। পাকিস্তান জাতীয় দলেও অংশ নিয়েছিলেন তিনি।

২০০৮ সালে প্রথমবারের মতো বর্ষসেরা ক্রীড়াবিদের পুরস্কার পেয়েছিলেন সাকিব আল হাসান। এরপর দুর্দান্ত পারফরম্যান্স দেখিয়ে ২০০৯ সালে টানা দ্বিতীয়বারের মতো এই পুরস্কার যেতেন তিনি। মাঝখানে ২০১০ সালের পুরস্কারটা গিয়েছিল সিদ্দিকুর রহমানের ঘরে। পেশাদারি গলফে বাংলাদেশকে সাফল্য এনে দেওয়ার স্বীকৃতি হিসেবে এই পুরস্কার জিতেছিলেন বাংলাদেশের এই গলফার। তবে পরের বছর থেকেই আবার নিজের শ্রেষ্ঠত্ব প্রতিষ্ঠা করেছেন সাকিব। ২০১১ সালের পর এবার টানা দ্বিতীয়বারের মতো জিতেছেন গ্রামীণফোন-প্রথম আলো বর্ষসেরা ক্রীড়াবিদের পুরস্কার।

জালাল আহমেদ চৌধুরি, গোলাম সারোয়ার টিপু, মাহবুব হারুন, স্বর্ণজয়ী শুটার সাবরিনা ও ফারুক আহমেদের সমন্বয়ে গঠিত জুরি বোর্ডের মাধ্যমে নির্বাচন করা হয়েছে বর্ষসেরা ক্রীড়াবিদদের।

ক্রীড়াজগতের এই মিলনমেলায় উপস্থিত ছিলেন সাবেক ক্রিকেটার গাজী আশরাফ হোসেন লিপু, হাবিবুল বাশার, রকিবুল হাসান, সাবেক ফুটবলার বাদল রায়, জসিম উদ্দিন জসি, আশজাফউদ্দিন আহমেদ চুন্নু, সাবেক হকি খেলোয়াড় বশির আহমেদ, স্বাধীন বাংলা ফুটবল দলের সদস্য জাকারিয়া পিন্টুসহ আরও অনেকে।

আরও পড়ুন

সর্বশেষ