মঙ্গলবার, এপ্রিল ২৩, ২০২৪
প্রচ্ছদজাতীয়অনির্বাচিত কাউকে নির্বাচনের দায়িত্ব দেয়া গণতন্ত্রের জন্য ঝুঁকি : প্রধানমন্ত্রী

অনির্বাচিত কাউকে নির্বাচনের দায়িত্ব দেয়া গণতন্ত্রের জন্য ঝুঁকি : প্রধানমন্ত্রী

pm-al-meeting-2013-06-01অনির্বাচিত ব্যক্তিদের নির্বাচনের দায়িত্ব দিয়ে সরকার গণতন্ত্রকে আর ঝুঁকির মুখে ফেলবে না বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। নির্বাচিত প্রতিনিধিদের অধীনেই আগামী নির্বাচন হবে বলে জানান তিনি। এছাড়া বিরোধীদল আগামী সংসদ নির্বাচনে অংশ নেবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন প্রধানমন্ত্রী।

শনিবার সকালে গণভবনে ফরিদপুর জেলা আওয়ামী লীগের তৃণমূল নেতাকর্মীদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় এসব কথা বলেন শেখ হাসিনা।

তত্ত্বাবধায়ক সরকার নিয়ে গণমাধ্যমে বিভিন্ন প্রস্তাব ও আলোচনার প্রসঙ্গ টেনে তত্ত্বাবধায়ক সরকার পরিচালনাকারীদের সমালোচনা করেন তিনি। শেখ হাসিনা বলেন, ‘অনেকেই অনেক কথা বলে যাচ্ছেন। পত্রিকার পাতা একেবারে তোলপাড় করে দিচ্ছে, তাদেরকেও বলব পরামর্শটা কার দেয়া। কারা ব্যাখ্যা দিয়েছিল এই সংবিধানের, ওই সুশীল বাবুরাই দিয়েছিল, ওই আইনজীবীরাই দিয়েছিল। আন্তর্জাতিক খ্যঅতিসম্পন্ন সংবিধান প্রণয়নকারীরা এটা বলেছিল যে রোজ কেয়ামত পর্যন্ত তত্ত্বাবধায়ক থাকতে পারবে।’

গণতন্ত্রকে আবারো ঝুঁকির মুখে না ফেলে সংসদীয় পদ্ধতিতে পরিচালিত দেশগুলোর নির্বাচনের আদলে অবাধ, সুষ্ঠু ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচনের নিশ্চয়তা দেন তিনি।

এ বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘বাংলাদেশের জনগণের স্বার্থে গণতন্ত্রকে প্রতিষ্ঠিত করা একান্তভাবে অপরিহার্য। কোন না কোনো জায়গা থেকে সেটা শুরু করতে হবে। কাজেই এবার নির্বাচন হবে অবাধ, নিরপেক্ষ, সুষ্ঠু নির্বাচন। গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে এবং গণতান্ত্রিক সরকার প্রথিবীর বিভিন্ন দেশে যেভাবে নির্বাচন পরিচালিত হয়, ঠিক সেভাবেই নির্বাচন হবে।’

তিনি আরো বলেন, ‘ভোট দেয়ার মালিক জনগণ। তাদের ভোটের মালিকানা যাতে সম্পূর্ণ নিশ্চিত হয়, সে লক্ষেই আমরা কাজ করছি। জনগণ ভোট দিলে আছি, না দিলে নাই। জনগণের রায় আমরা মাথা পেতে নেব।’

বিএনপি সমর্থিত প্রার্থীরা আসন্ন সিটি কররপোরেশন নির্বাচনে প্রার্থী হওয়ায় বিরোধী দলীয় নেতা খালেদা জিয়াকে ধন্যবাদ জানান প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘আমাদের সরকার যে অবাধ, নিরপেক্ষ নির্বাচন করতে পারে আমরা তা প্রমাণ করেছি। চারটা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে যে উনি অংশগ্রহণ করছেন সেজন্য আমি ধন্যবাদ জানাই। আশা করি উনি আগামী সংসদ নির্বাচনেও তিনি অংশগ্রহণ করবেন।’

আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর সঙ্গে তৃণমূলের ধারাবাহিক আলোচনায় এবারে যোগ দিলেন ফরিদপুর জেলার নেতাকর্মী ও জনপ্রতিনিধিরা। সকালে গণভবনে তাদেরকে স্বাগত জানান প্রধানমন্ত্রী। দলকে সুসংগঠিত করতে দিকনির্দেশনাও দেন তিনি।

এছাড়া বিগত বিএনপি সরকারের সময়ের জনজীবন, অর্থনীতি, আইন-শৃঙ্খলা ও বহির্বিশ্বে দেশের ভাবমূর্তির দুর্গতি উঠে আসে আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর সূচনা বক্তব্যে।

আরও পড়ুন

সর্বশেষ