বৃহস্পতিবার, এপ্রিল ২৫, ২০২৪
প্রচ্ছদজাতীয়হরতালে ভোর থেকেই মাঠে নামে ছাত্রদল ও জামাত-শিবির কর্মীরা, বিচ্ছিন্ন ভাংচুর-সংঘর্ষ, ককটেল...

হরতালে ভোর থেকেই মাঠে নামে ছাত্রদল ও জামাত-শিবির কর্মীরা, বিচ্ছিন্ন ভাংচুর-সংঘর্ষ, ককটেল বিস্ফোরণ

20130বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারির প্রতিবাদে ডাকা বুধবারের হরতালে রাজধানী জুড়ে ককটেল বিস্ফোরণের মাধ্যমে আতঙ্ক ছড়ানোর চেষ্টা করছে বিএনপি-জামায়াতের কর্মীরা। হরতালে বুধবার ভোর থেকেই মাঠে নামে ছাত্রদল ও জামাত-শিবির । মিরপুরে ছাত্রদলের মিছিল থেকে ককটেল বিস্ফোরণ ঘটানো হলে পুলিশ গুলি ছুঁড়ে জবাব দেয়। এছাড়া হরতালের সমর্থনে মিরপুর ও আজিমপুরে মিছিল বের করে জামায়াত শিবির। এ সময় ককটেলের বিস্ফোরণ ঘটায় তারা।

‍সকাল ৭টার দিকে মিরপুর চিড়িয়াখানা রোড সনি সিনেমা হলের সামনে ছাত্রদল ঢাকা মহানগরের (উত্তর) ব্যানারে একটি মিছিল বের হয়। মিছিলে নেতৃত্ব দেন ঢাকা মহানগর ছাত্রদলের (উত্তর) সাধারণ সম্পাদক হুমায়ন কবির রওশন। পুলিশ মিছিলটিকে ধাওয়া দিয়ে ছত্রভঙ্গ করার চেষ্টা করলে ৬টি ককটেলের বিস্ফোরণ ঘটায় হরতাল সমর্থকরা। জবাবে কয়েক ‍রাউন্ড গুলি ছোঁড়ে পুলিশ।

একই সময় মিরপুর বাঙলা কলেজের সামনে ছাত্রদল মিছিলের চেষ্টা করলে বাধা দেয় পুলিশ। এ সময় পুলিশ সেখান থেকে ২ জনকে আটক করে।

সকাল সোয়া ৬টার দিকে মিরপুর অরজিনাল ১০ বেনারসি পল্লীর ভেতরে হরতালের সমর্থনে ঝটিকা মিছিল বের করে জামায়াত শিবির কর্মীরা।মিছিল শেষে রাস্তায় পেট্রোল ঢেলে আগুন ধরিয়ে দ্রুত ছত্রভঙ্গ হয়ে যায় তারা। ভোরে আজিমপুর বটতলা মোড়ে হরতালের সমর্থনে মিছিল বের করে জামায়াত-শিবির কর্মীরা। মিছিলটি ছাপড়া মসজিদের পাশ দিয়ে যাওয়ার সময় পরপর দু’টি ককটেলের বিস্ফোরণ ঘটায় তারা। রাজধানীর শ্যামপুরেও মিছিল করেছে জামায়াত-শিবির। শ্যামপুর ও যাত্রাবাড়ি থেকে ফটো করেসপন্ডেন্ট দেলোয়ার হোসেন বাদল জানান, ভোর সাড়ে ৫ টার দিকে জামায়াত-শিবির কর্মীরা মীরহাজারিবাগে ঝটিকা মিছিল বের করে। এ সময় পুলিশ রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে তাদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়। ঘটনাস্থল থেকে ৪ জনকে আটক করে পুলিশ। সকাল পৌনে আটটার দিকে যাত্রাবাড়ির দনিয়াতে হরতালের সমর্থনে মিছিল বের করে ছাত্রদল। এ সময় হরতাল সমর্থকরা গাড়ি ভাঙচুরের চেষ্টা করলে  তাদের ছত্রভঙ্গ করতে পুলিশ কয়েক রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছোঁড়ে। একই সময়ে ধলপুর বৌ বাজারে জামায়াত ও যাত্রাবাড়িতে জুরাইন কদমতলী থানা যুবদল মিছিল বের করে। এখানেও পুলিশ ধাওয়া দিয়ে মিছিলকারীদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়।
সকাল সোয়া ৭ টায় হরতাল সমর্থনে জুরাইন ওয়াসা রোডে মিছিল বের করে জাতীয়তাবাদী মহিলা দল। তবে পুলিশের ধাওয়া খেয়ে পালিয়ে যায় মিছিলকারীরা।
এদিকে শাহজাহানপুর, মুগদা ও বনশ্রীতে হরতালের সমর্থনে বিএনপি ও জামায়াত মিছিল বের করে। সকাল পৌনে ৮ টার দিকে শাহজাহানপুর মির্জা আব্বাস মহিলা বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের সামনে হরতাল সমর্থনে ৩৪ নম্বর ওয়ার্ড ছাত্রদল ঝটিকা মিছিল বের করে। এ সময় রাস্তায় টায়ারে আগুন জ্বালায় তারা। সাড়ে ৬টায় রামপুরা-বনশ্রীতে হরতাল সমর্থনে মিছিল বের করে জামায়াত-শিবির। একই সময় মুগদায় খিলগাঁয়ে মিছিল বের করে থানা যুবদল।

পূর্বের হরতালের মত বুধবারও বিএনপির কেন্দ্রীয় অফিস তালাবদ্ধ। সকাল পৌনে আটটার দিকে পুরানা পল্টন লাইন দিয়ে একটি মিছিল নয়াপল্টনের মূল রাস্তায় উঠে আসতে চাইলে ধাওয়া দিয়ে ছত্রভঙ্গ করে দেয় পুলিশ।  এদিকে হরতালে যে কোনো নাশকতা ঠেকাতে ভোর থেকেই রাজধানীর বিভিন্ন পয়েন্টে সতর্ক অবস্থান নিয়েছে আইনশৃঙ্খলা পুলিশ, র্যাব ও গোয়েন্দা সংস্থার সদস্যরা।

আরও পড়ুন

সর্বশেষ