রবিবার, মে ১৯, ২০২৪
প্রচ্ছদটপগঙ্গা পানি চুক্তির ১৭ বছর পর মওদুদের প্রশংসা

গঙ্গা পানি চুক্তির ১৭ বছর পর মওদুদের প্রশংসা

modud১৯৯৬ সালে গঙ্গা পানি চুক্তির ১৭ বছর পর সংসদে এর প্রশংসা করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মওদুদ আহমদ। তিনি বলেছেন, ‘আওয়ামী লীগ সরকার এই চুক্তি করে ভাল কাজ করেছে। কোনো চুক্তি না থাকার চেয়ে একটা চুক্তি থাকা ভাল’। মওদুদ আহমদের এই বক্তব্য নিয়ে পরে কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাসহ সরকার দলের কয়েকজন জ্যেষ্ঠ নেতা।

মওদুদ আহমেদ বলেন, বর্তমান সরকার তিস্তার পানি বণ্টন চুক্তি করতে পারেনি। এটা সরকারের ব্যর্থতা। এই পর্যায়ে এসে তিনি কথা বলেন গঙ্গা পানি বণ্টন চুক্তি নিয়ে।
মওদুদ আহমদের বক্তব্যের পর সংসদে পয়েণ্ট অব অর্ডারে বক্তব্য দেন আওয়ামী লীগ নেতা তোফায়েল আহমেদ। বলেন, বিএনপি ক্ষমতায় থাকতে তিস্তা নিয়ে কিছু কার করে রেখে গেলে আওয়ামী লীগ এগিয়ে নিতে পারতো। গঙ্গা পানি বণ্টন চুক্তি নিয়েও বিএনপি কিছু করেনি।
এরপর বলেন আওয়ামী লীগের সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত। বলেন, ‘মওদুদ আহমদ এতদিন পর এসে সরকারকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন। কিন্তু সেদিন আমরা চুক্তি করেছিলাম, ১৬ হাজার কিউসেকের জায়গায় ৩৪ হাজার কিউসেক পানি আনার চুক্তি করেছিলাম, সেদিন মওদুদ আহমেদের দল সংসদে এর বিরোধীতা করেছিলেন’।
এরপর আবার দাঁড়ান মওদুদ আহমদ। বলেন, গঙ্গার পানিচুক্তি নিয়ে তাদের আগে যে আপত্তি ছিল, এখনও সেই আপত্তিই আছে। তিনি দাবি করেন, এই চুক্তিতে কোনো গ্যারান্টি ক্লজ নাই। আবার পানি নিয়ে মত বিরোধ বা কেউ ‍কেউ যদি চুক্তি ভঙ্গ করে, তাহলে কী হবে, সেটা বলা নাই।
সব শেষে কথা বলে, প্রধানমন্ত্রী। বলেন, বিএনপি কখনও সরকারের ভাল কাজের প্রশংসা করে না। গঙ্গার পানি বণ্টন চুক্তিতে গ্যারান্টি ক্লজ আছে বলে জানান তিনি। কোনো পক্ষ চুক্তি নিয়ে অসন্তুষ্ট হলে দুই বছর পর পর বসে পর্যালোচনা করতে পারবে বলেও জানান শেষ হাসিনা।
বিএনপি ক্ষমতায় থাকতে গঙ্গার পানি নিয়ে চুক্তি করতে কিছু করেনি জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ১৯৯১ সালে ক্ষমতায় থাকতে ভারতে গিয়ে এ নিয়ে কোনো কথা বলেননি বেগম খালেদা জিয়া। তখন সাংবাদিকরা এ নিয়ে জানতে চাইলে তখন তিনি ভুলে যাওয়ার কথা বলেছিলেন। প্রধানমন্ত্রী বলেন, তারা এমনই, ক্ষমতার বাইরে থাকলে তারা অনেক কথা বলে, কিন্তু ক্ষমতায় থাকতে ভুলে যায়।
আরও পড়ুন

সর্বশেষ