রবিবার, মে ১৯, ২০২৪
প্রচ্ছদচট্রগ্রাম প্রতিদিন১২টার অনুষ্ঠানে মন্ত্রী আফসারুল আমিন এলেন সাড়ে ৫টায়!

১২টার অনুষ্ঠানে মন্ত্রী আফসারুল আমিন এলেন সাড়ে ৫টায়!

0470দুপুর ১২টায় আসার কথা থাকলেও প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রী ডা. আফসারুল আমীন আসলেন বিকেল সাড়ে পাঁচটায়। এর মাঝে দুই বার অনুষ্ঠানের সময়ও পরিবর্তন হল। বারবার সময় পরিবর্তন আর মন্ত্রীর বিলম্বে বিপাকে পড়েন সংবাদকর্মীসহ আমন্ত্রিত অতিথি ও অংশগ্রহণকারীরা। আর এসব কারণে অনুষ্ঠান শেষ হওয়ার আগেই অনেককে অনুষ্ঠানস্থল ত্যাগ করতে দেখা গেছে। গতকাল শনিবার নগরীর নাসিরাবাদে সমাবেশ কমিউনিটি সেন্টারে চট্টগ্রাম সংসদীয় নয় আসনের আট নম্বর শুলকবহর ওয়ার্ডের ৪৩টি কিন্ডার গার্টেন স্কুলে কম্পিউটার বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রী ডা. আফসারুল আমিন আসেন দুপুর ১২টার পরিবর্তে বিকাল সাড়ে পাঁচটায় অনুষ্ঠানস্থলে আসেন। এসেই অনুষ্ঠানের শুরুতে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন।
শুক্রবার রাতে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রী আফসারুল আমিন এমপি’র ব্যক্তিগত সচিব মো. দেলওয়ার হোসেন সংবাদপত্র অফিসে ফোন করে দুপুরে অনুষ্ঠান আয়োজন করা হবে বলে সংবাদ সংগ্রহের জন্যে আমন্ত্রণ জানান। ব্যক্তিগত সচিবের আমন্ত্রণ অনুযায়ী গতকাল দুপুর ১২টায় অনুষ্ঠানস্থল সমাবেশ কমিউনিটি সেন্টারে গিয়ে এক সংবাদকর্মী দেখেন আমন্ত্রিত অতিথিতো দূরের কথা সেখানে নেই অনুষ্ঠান আয়োজনের কোনো নিদর্শন। দেখেন কমিউনিটি সেন্টারের দুই কর্মচারী ও আয়োজকদের একজন সেখানে দাঁড়িয়ে রয়েছেন। অনুষ্ঠান কখন শুরু হবে জানতে চাইলে তারা জানান বিকেল ৩টায়। পরে বিকাল তিনটায় আবার গিয়ে দেখেন অনুষ্ঠান আয়োজনের প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। আমন্ত্রিত অতিথিসহ অংশগ্রহণকারীরাও এসেছেন। কিন্তু আসেননি মন্ত্রী। মন্ত্রীর বিলম্বে এ সময় অনেককে এদিক ওদিক ঘোরাফেরা করতে দেখা যায়। কয়েকজনকে অনুষ্ঠানস্থল থেকে চলে যেতেও দেখা গেছে।
অবশেষে সবার অপেক্ষার প্রহর শেষ করে মন্ত্রী বিকাল সাড়ে পাঁচটায় অনুষ্ঠানস্থলে আসেন। এসেই কোনো কারণ না দেখিয়েই ব্যাখ্যা ছাড়াই বক্তব্য শুরু করেন।
এ সম্পর্কে জানতে মন্ত্রীর ব্যক্তিগত সচিব দেলোয়ার হোসেনের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ‘আজ মন্ত্রী মহদোয়ের অনেকগুলো অনুষ্ঠান থাকায় অনুষ্ঠানে আসতে দেরি হয়েছে। আর দেরি হওয়ায় এবং উনার জন্যে দীর্ঘক্ষণ অপেক্ষারত অতিথিদের কথা চিন্তা করে তিনি বক্তব্য শুরু করে দেন।’
মন্ত্রীর ব্যক্তিগত সচিব আরও বলেন, ‘দুপুরে এই অনুষ্ঠানের দাওয়াত দেননি। পাহাড়তলী এলাকায় আয়োজিত অন্য আরেকটি অনুষ্ঠানের দাওয়াত দিয়েছেন।’
খয়রাতি মিয়া’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ চেয়ারম্যান আবদুচ ছালাম ও নগর স্বেচ্ছাসেবকলীগ যুগ্ম আহবায়ক ে শাহজাহান।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী আফসারুল আমিন এমপি বলেন, ‘বর্তমান সরকার দেশের শিক্ষা ব্যবস্থাকে যুগোপযোগী করে তুলতে ব্যাপক কাজ করে যাচ্ছে। শিক্ষার্থীরা যাতে প্রতিযোগিতামূলক আধুনিক বিশ্বের সাথে তালমিলিয়ে চলতে পারে তার জন্য নানামুখী পদক্ষেপের অংশ হিসেবে শিক্ষার্থীদের কাছে তথ্য প্রযুক্তির সকল সুবিধা নিশ্চিত করার জন্য দেশের বিদ্যালয় সমূহে কম্পিউটার প্রদান করছে। এটি প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত ভিশন ২০২১ বাস্তবায়নে সহায়ক হবে।’
তিনি আরও বলেন, ‘বর্তমানে প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীর হার অনেকাংশে বৃদ্ধি পেয়েছে তাই অচিরেই আরো প্রাথমিক শিক্ষক-শিক্ষিকা নিয়োগের জন্য প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রনালয় সিদ্বান্ত নিয়েছে।’ এসময় নিজের রাষ্ট্রীয় দায়িত্ব ও কর্তব্য বোধ থেকে প্রত্যেক শিক্ষক-শিক্ষিকাকে শিশুদের পাঠদানে সর্বোচ্চ যতœবান হওয়ার আহ্বানও জানান মন্ত্রী।
অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে কিন্ডার গার্টেন স্কুলের শিক্ষক-শিক্ষিকাদের উদ্দেশ্য করে চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ চেয়ারম্যান আবদুচ ছালাম বলেন, ‘বর্তমান সরকার আপনাদেরকেও বাদ দেননি। সরকার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পাশাপাশি বেসরকারি বিদ্যালয়েও শিক্ষার যাবতীয় ডিজিটাল উপকরণ প্রদান করছে।’ এসময় তিনি দেশের উন্নয়নে সরকার যে যুগান্তকারী পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে তার ধারা অব্যাহত রাখতে আগামীতে আবারও সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে উপস্থিত সকলের প্রতি আহ্বান জানান।
নগর যুবলীগ নেতা মোরশেদ আলমের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত কম্পিউটার বিতরণ সভায় বক্তব্য রাখেন ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক শাহজাহান সুফী, যুগ্ম সম্পাদক বাহা উদ্দিন লতিফি, আওয়ামী লীগ নেতা আব্বাস উদ্দিন চৌধুরী, আতিকুর রহমান চৌধুরী, আফসার নুন, এম এ হাশেম, আবুল বশর মিলন, সাবেক ছাত্র নেতা নুরুল আনোয়ার, নগর ছাত্রলীগ নেতা এস এম আলম, জাবেদুল আযম মাসুদ প্রমুখ।

আরও পড়ুন

সর্বশেষ