সোমবার, মে ২০, ২০২৪
প্রচ্ছদটপগণতন্ত্রের স্বার্থে, দেশের স্বার্থে যে প্রস্তাব ফিরিয়ে নিয়েছেন তা আবার দিন...

গণতন্ত্রের স্বার্থে, দেশের স্বার্থে যে প্রস্তাব ফিরিয়ে নিয়েছেন তা আবার দিন – বিএনপিকে সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম

asraful(3)তত্ত্বাবধায়ক সরকার ফিরিয়ে আনার দাবিতে বিএনপিকে আবারও সংসদে মুলতবি প্রস্তাব দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও স্থানীয় সরকারমন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম।

তিনি বলেন, ‌‍গণতন্ত্রের স্বার্থে, দেশের স্বার্থে আপনারা যে প্রস্তাব ফিরিয়ে নিয়েছেন তা আবার দিন। আগামী নির্বাচনকালীন সরকার নিয়ে সংসদে এসে প্রাণবন্ত আলোচনা করুন। আমরা কথা দিচ্ছি সংখ্যাগরিষ্ঠতার জোরে আমরা যুক্তিতর্ক উপস্থাপন করবো না।’

শনিবার রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইন্সটিটিউটে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ গঠনে প্রগতিশীল গণতান্ত্রিক কর্মীদের ঐক্যের লক্ষ্যে আয়োজিত কনভেনশনের শুভেচ্ছা বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম বলেন, ‘আমরা আশা করেছিলাম বিএনপি সংসদের মাধ্যমে জাতির কাছে তাদের বক্তব্য তুলে ধরবেন। আমরাও সংসদের মাধ্যমে জাতির কাছে আমাদের বক্তব্য তুলে ধরবো। এটাই রাজনীতির সংস্কৃতি। কিন্তু কিছুক্ষণের মধ্যে বেগম জিয়া সংসদের এসে সে প্রস্তাব তুলে নিলেন। এর মাধ্যমে প্রমাণিত হলো তারা আলোচনা চায় না। তারা ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে ক্ষমতা কুক্ষিগত করতে
চায়।’

তিনি বলেন, ‘৩০ লক্ষ প্রাণের বিনিময়ে অর্জিত স্বাধীন দেশে রাজনীতির প্রতিদ্বন্দ্বিতা হবে গণতন্ত্রে বিশ্বাসীদের মধ্যে। যে রাজনীতি প্রতিষ্ঠা করার জন্য দেশ স্বাধীন করা হয়েছিলো আমরা তা বাস্তবায়ন করতে পারি নি’

বিএনপির বাজেট প্রতিক্রিয়ার সমালোচনা করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘বাজেট প্রতিক্রিয়ায় মওদুদ সাহেব  বাজেট বিশ্লেষণে গেলেন না। তিনি ছোট একটি কথা বললেন বিগ বিউটিফুল বেলুন।’

তিনি বলেন, ‘আশা করেছিলাম বিরোধী দল বাজেটকে বিশ্লেষণ করবেন। বাজেটের যে সকল প্রস্তাব জনবান্ধব প্রস্তাবসমূহ বাস্তবায়নে সরকারকে সহযোগিতা আর

জনবিরোধী প্রস্তাব বাতিল করতে সরকারকে চাপ সৃষ্টি করবে। আসলে বিরোধী দল রাজনৈতিক ভাবে দেউলিয়া। তাই তারা সরকারকে রাজনৈতিকভাবে মোকাবেলা করতে চায়
না। তারা আশ্রয় নিয়েছে হেফাজত ও জামায়াতের কাছে।’

সিপিডির বাজেট প্রতিক্রিয়ার সমালোচনা করে সৈয়দ আশরাফ বলেন, ‘ড. দেবপ্রিয় ভট্টাচার্য সিডিপির প্রধান কর্মকর্তা নন। তারপর তিনি বাজেট নিয়ে মন্তব্য করেছেন। আমাদের সন্দেহ হয় এটা সিপিডির না দেবপ্রিয় সাহেবের বাজেট প্রতিক্রিয়া। সিপিডির মতো ইন্সটিটিউটও আজকে দেউলিয়া হয়ে যাচ্ছে। একটি রাজনৈতিক সরকারের বিরোধী একটি এনজিও হতে পারেন না।’

বুদ্ধিজীবীদের সমালোচনা করে তিনি বলেন, ‘কিছু সংখ্যাক তথাকথিত বুদ্ধিজীবী টেলিভিশনের টকশোতে আসেন। তুলা উৎপাদন ব্যাহত, অকাল বন্যার কারণ, বাজেট ইত্যাদি সব বিষয়ে তারা পণ্ডিত। পৃথিবীর সকল বিষয় ও ডিসিপ্লিনে তারা পণ্ডিত ।  এরা তত্ত্বাবধায়ক সরকার চায় না, নির্বাচন চায় না। এরা চায় কিছু দিনের জন্য তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা হতে।’

কনেভনশনের আয়োজকদের স্বাগত জানিয়ে তিনি বলেন, বাংলাদেশের রাজনীতিতে ভ্যাকুয়াম সৃষ্টি হয়েছে। আপনাদের মতো শক্তি যদি ভ্যাকুয়াম পূরণ করতে না পারলে তা হলে তা দেশের জন্য অশনি সংকেত। আপনারা নিজেদের প্রস্তুত করতে পারলে আওয়ামী লীগের বিকল্প হিসেবে আপনারা হতে পারেন।’

কনভেনশন প্রস্তুতি কমিটির আহ্বায়ক পঙ্কজ ভট্টাচার্যের সভাপতিত্বে সভায় আরও বক্তব্য রাখেন সিপিবি সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম, ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন, জাসদের সাধারণ সম্পাদক শরীফ নূরুল
আম্বিয়া, গণতন্ত্রী পার্টির সাধারণ সম্পাদক নুরুর রহমান সেলিম প্রমুখ।

আরও পড়ুন

সর্বশেষ