রবিবার, মে ১৯, ২০২৪
প্রচ্ছদচট্রগ্রাম প্রতিদিনরোববারের মধ্যে আসলাম চৌধুরীকে মুক্তি না দিলে সোমবার হরতালসহ কঠোর কর্মসূচী -...

রোববারের মধ্যে আসলাম চৌধুরীকে মুক্তি না দিলে সোমবার হরতালসহ কঠোর কর্মসূচী – ডা.শাহাদাৎ

bnp human chainগাড়িতে অগ্নিসংযোগ ও ভাংচুরের অভিযোগে দায়ের হওয়া একটি মামলায় কারাগারে থাকা আসলাম চৌধুরীকে মুক্তি দেয়ার জন্য আগামীকাল রোববার পর্যন্ত সময় বেঁধে দিয়েছে বিএনপি। অন্যথায় সোমবার বিকেলে প্রতিবাদ সমাবেশ থেকে হরতালের মত কঠোর কর্মসূচী ঘোষণা করা হবে বলে জানিয়েছেন দলটির নেতারা।

শনিবার সকালে আসলাম চৌধুরীসহ বিএনপি নেতাদের মুক্তির দাবিতে দলীয় কার্যালয় নগরীর নাসিমন ভবনের সামনে আয়োজিত এক মানববন্ধনে এ ঘোষণা দেন নগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ডা.শাহাদাৎ হোসেন।

উত্তর জেলা বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি এস এম ফজলুল হকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ মানবন্ধনে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা মীর মো.নাছির উদ্দিন। আরও বক্তব্য রাখেন সাবেক হুইপ সৈয়দ ওয়াহিদুল আলম, কেন্দ্রীয় সহ শ্রম বিষয়ক সম্পাদক এ এম নাজিম উদ্দিন।

তারেক রহমানকে ‘ফেরারি আসামী’ উল্লেখ করে পররাষ্ট্র মন্ত্রীর বক্তব্যের সমালোচনা করে মীর মো.নাছির উদ্দিন বলেন, ‘পররাষ্ট্র মন্ত্রী শিষ্টাচার বর্হিভূত বক্তব্য দিয়েছেন। তাকে এ ‍বক্তব্য প্রত্যাহারে বাধ্য করা হবে। অন্যথায় তিনি কিভাবে চট্টগ্রামের মাটিতে পা রাখেন সেটি দেখে নেয়া হবে।’

নগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ডা.শাহাদাৎ হোসেন বলেন, ‘মামলা-হামলাকে বিএনপি নেতাকর্মীরা ভয় করেনা। বিএনপির প্রত্যেক নেতাকর্মী জেলে যেতে প্রস্তুত আছেন। যতই মামলা দেয়া হবে, নির্যাতন হবে, ততই আন্দোলন জোরদার হবে।’

তিনি সোমবার বিকেল ৩টায় প্রতিবাদ সমাবেশ ও বিক্ষোভ মিছিলের কর্মসূচী ঘোষণা করে বলেন, ‘রোববারের মধ্যে আসলাম চৌধুরীকে মুক্তি দিতে হবে। অন্যথায় সোমবার হরতালসহ কঠোর কর্মসূচী ঘোষণ‍া করা হবে।’

মানববন্ধন থেকে শনিবার বিকেলে উত্তর জেলার প্রতিটি থানা ও ওয়ার্ডে বিক্ষোভ মিছিলের কর্মসূচী ঘোষণা করেন এস এম ফজলুল হক।

উল্লেখ্য কেন্দ্রীয় সহ সাংগঠনিক সম্পাদক ও উত্তর জেলা বিএনপির স‍াধারণ সম্পাদক আসলাম চৌধুরীকে সীতাকুন্ড থানায় গাড়ি ভাংচুর ও অগ্নিসংযোগের অভিযোগে দায়ের হওয়া একটি মামলায় গত বৃহস্পতিবার কারাগারে পাঠান চট্টগ্রামের একটি আদালত।

এর প্রতিবাদে নগরীতে দায়সারা একটি বিক্ষোভ সমাবেশ, সীতাকুন্ডে সড়ক অবরোধ, গাড়ি ভাংচুরের মত বিচ্ছিন্ন কিছু প্রতিবাদ হলেও চট্টগ্রামের আর কোথাও কোন কর্মসূচী পালিত হয়নি।

আরও পড়ুন

সর্বশেষ