সোমবার, জুন ১৭, ২০২৪
প্রচ্ছদটপযেসব পণ্যের দাম কমছে এবং বাড়ছে

যেসব পণ্যের দাম কমছে এবং বাড়ছে

BUDGET START২০১৩-১৪ অর্থবছরে প্রস্তাবিত বাজেটে কর সুবিধা ও কর আরোপ এবং আমদানি শুল্ক বাড়ানো বা কমানোর ফলে বেশ কিছু পণ্যের দাম বাড়ার সম্ভাবনা রয়েছে। পাশাপাশি কমতে পারে আরও বেশকিছু পণ্যের দাম।

আসছে অর্থবছরে যে সকল পণ্যের দাম কমার সম্ভবনা রয়েছে তা হলো,

১. পোল্ট্রি ফিড,২. রিকন্ডিশন গাড়ি,৩. সিম কার্ড, ৪. লেড লাইট, ৫. ডিজিটাল ক্যামেরা, ৬. প্রিন্টার, ৭.তরল দুধ, ৮. অগ্নিনির্বাপন পণ্য, ৯.সোলার ল্যাম্প,
১০. মূলধনী যন্ত্রপাতিসহ আরও বিভিন্ন পণ্য

দেশে উৎপাদিত সৌন্দর্য ও প্রসাধন সামগ্রী, ত্বক ও কেশ পরিচর্যার সামগ্রী, মশার কয়েল, শেভিং ও টয়লেট্রিজ সামগ্রীর দাম কমছে। কারণ, দেশীয় শিল্পের প্রতিরক্ষণ ও আমদানি পণ্যের সঙ্গে মূল্য প্রতিযোগী করতে দেশীয় উৎপাদিত কতিপয় প্রসাধনী ও টয়লেট্রিজ সামগ্রীর বিদ্যমান সম্পূরক শুল্ক ২০ থেকে কমিয়ে ১০ শতাংশ প্রস্তাব করা হয়েছে।

পোল্ট্রি, ডেয়ারি, ফিশ ফিড, সকল প্রকার সার, ইনসুলিন, ইনসুলিন পেন, স্ট্রেপকোকাইনেজ, পঙ্গু ও প্রতিবন্ধীদের ব্যবহার্য হুইল চেয়ার, অন্ধদের জন্য তৈরি করা ঘড়ি, হাসপাতাল শয্যা পণ্যের উৎপাদিত পর্যায়ে মূসক অব্যাহতির প্রস্তাব করা হয়েছে। যে কারণে এসব পণ্যের দামও কমছে।

ওয়েব ক্যাম ও ডিজিটাল ক্যামেরার ওপর বর্তমানে ২৫ শতাংশ আমদানি শুল্ক বিদ্যমান রয়েছে। তা কমিয়ে ১০ শতাংশ করার প্রস্তাব। গাড়ির অত্যাবশ্যকীয় অংশ গ্লাস ও উইন্ডশিল্ড, অপটিক্যাল ফাইবার ক্যাবল, এলইডি ল্যাম্প, মেডিকেল যন্ত্রপাতি প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠানের কাঁচামাল এফইপি/টেফলন টিউবের আমদানি শুল্ক ২৫ থেকে ১০ শতাংশ করা হচ্ছে। অগ্নিনির্বাপন যন্ত্রাংশ, মিনিবাসের চেসিস, সার্ভার ৠাক ও সিম কার্ডের দাম কমছে।

দাম কমার তালিকায় আরো রয়েছে; লাইফ বোর্ড, জাহাজের যন্ত্রপাতি, ডাম্প ট্রাক, সুপারশপের বিভিন্ন যন্ত্রাংশ যেমন- কেবিনেট, শোকেস, ডিসপ্লে কাউন্টার ইত্যাদি।

অন্যদিকে, যে সকল পণ্যের দাম বাড়ার সম্ভবনা রয়েছে তা হলো,

১. তামাকজাত পণ্য, ২. গুড়া দুধ, ৩. রেল স্লিপার, ৪.পটেটো চিপস, ৫. আমদানিকৃত নিউজপেপার, ৬. মশার কয়েল, ৭. ফ্লোট কাঁচ, ৮. প্রিন্টিং প্লেট, ৯. গ্যাস সিলিন্ডার
১০. কোল্ড আয়রন রোল্ড ইস্টিল কয়েল।

২০১৩-২০১৪ অর্থবছরের পেশ করা বাজেটে কৃষি, কৃষি খাদ্য ও শিল্পকে উৎসাহিত করতে দেশি শিল্পজাত পণ্যের দাম বৃদ্ধির প্রস্তাব করা হয়েছে। পাটজাত পণ্যের দামও বাড়ানোর প্রস্তাব করা হয়েছে বাজেটে।

অপরদিকে আমদানি করা শিশুখাদ্য গুঁড়া দুধের দাম বৃদ্ধির প্রস্তাব রয়েছে। শুল্ক বৃদ্ধির প্রস্তাব করা হয়েছে বিদেশি ফুল ও স্ট্রবেরি ফলের।

অর্থমন্ত্রীর বৃহস্পতিবারের দেওয়া ২০১৩-১৪ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটে আমদানি করা গুঁড়োদুধ ও শিশুখাদ্যের উপাদানসহ মোট ২৩টি পণ্যের শুল্ক বৃদ্ধির প্রস্তাব করা হয়েছে।

এসব তালিকার মধ্যে দাম বাড়ছে, ছাপা কাজের প্লেট, বিলবোর্ড ও কেবিনেট তৈরির যন্ত্রাংশ সালফার, এলপিজি গ্যাস সিলিন্ডার (৫ হাজার লিটারের নিচে), রেলওয়ে স্লিপার, লোহা ও লোহার যন্ত্রাংশ, স্টিল যন্ত্রাংশ, গোলাপ ফুল, অর্কিড, লিলি ফুল।

গুঁড়াদুধ শিশু খাদ্যের উপাদানের আমদানি শুল্ক বাড়ানো হয়েছে ৫ শতাংশ। বর্তমান আমদানি শুল্ক রয়েছে ৫ শতাংশ। এ বছর বাড়িয়ে করা হয়েছে ১০ শতাংশ।

রেলওয়ে স্লিপারের আমদানি শুল্ক বাড়ানো হয়েছে ১৩ শতাংশ। বর্তমান আমদানি শুল্ক ১২ শতাংশ। বাড়িয়ে করা হয়েছে ২৫ শতাংশ।

সম্পূরক শুল্ক বৃদ্ধির প্রস্তাব করা হয়েছে ২২টি পণ্যের ক্ষেত্রে।

এর মধ্যে পটেটো চিপস, মশার কয়েল, টেকস্টাইল পণ্য, পাটজাত পণ্য কার্পেট, সব ধরণের মাছ আমদানি, বিদেশি ফল, এনার্জি ড্রিংক, অর্নামেন্টস ও কাঁচা জাতীয় পণ্যের দাম বাড়ানোর প্রস্তাব করা হয়েছে।

আরও পড়ুন

সর্বশেষ