বৃহস্পতিবার, এপ্রিল ২৫, ২০২৪
প্রচ্ছদআরো খবর......তারেক রহমান কোনো রাজনৈতিক ব্যক্তি নন, তিনি একজন ফেরারি আসামি - পররাষ্ট্রমন্ত্রী...

তারেক রহমান কোনো রাজনৈতিক ব্যক্তি নন, তিনি একজন ফেরারি আসামি – পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড.দীপু মনি

Foreign Minister-পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড.দীপু মনি বলেছেন, তারেক রহমান কোনো রাজনৈতিক ব্যক্তি নন, তিনি একজন ফেরারি আসামি। তাকে ফিরিয়ে এনে আমাদের কাছে হস্তান্তর করতে ইতিমধ্যেই ইন্টারপোল ও বৃটেনকে জানানো হয়েছে। মঙ্গলবার পররাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ে ব্রাসেলস ও সিঙ্গাপুর সফর সম্পর্কে সাংবাদিকদের সঙ্গে ব্রিফিংকালে এক প্রশ্নের জবাবে দীপু মনি এসব কথা বলেন। সাংবাদিকেরা তাঁর কাছে জানতে চান, বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে ফেরাতে সরকার উদ্যোগ নিয়েছে কি না। পররাষ্ট্রমন্ত্রী দীপু মনি বলেন, �তারেক রহমান যে ফেরারি আসামি, সেটি যুক্তরাজ্য ও ইন্টারপোলকে জানানো হয়েছে। মন্ত্রী বলেন, তারেক রহমান দেশ থেকে যাবার আগে তার রাজনৈতিক পদ থেকে পদত্যাগ করেছেন এবং রাজনীতিতে অংশগ্রহণ করবে না বলেও তিনি একটি অঙ্গীকারনামায় সই করে গেছেন। দীপু মনি বলেন, যে মামলায় তিনি এখন বিচারাধীন আছেন সেই মামলায় তার বিরুদ্ধে ওয়ারেন্ট হয়েছে অনেক আগে। যেহেতু তিনি হাজিরা দেননি, আত্মসমর্পণ করেননি কাজেই সেই মামলায় তিনি এখন ফেরারি আসামি। পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেন, বাাংলাদেশের পররাষ্ট্রনীতি একান্তই বাংলাদেশের। দেশের জনগণ এবং রাষ্ট্রের স্বার্থকে অগ্রাধিকার দিয়ে আমরা পররাষ্ট্র নীতি পরিচালনা করছি। কাজেই আমাদের পররাষ্ট্রনীতিতে কারো দ্বারা প্রভাবিত হওয়ার কোনো বিষয় নেই। পররাষ্ট্রমন্ত্রীর আরো বলেন, স্বাধীনতার চেতনা সমুন্নত রেখে আমরা পররাষ্ট্রনীতি পরিচালনা করি। কাজেই এখানে কারো কোনো ধরণের প্রভাবের প্রশ্নই আসে না। তবে যখন আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসের প্রশ্ন আসে, সেখানে আঞ্চলিক, উপ-আঞ্চলিক আন্তর্জাতিক সকল প্রচেষ্টা প্রয়োজন। এক্ষেত্রে আমাদের প্রতিবেশী রাষ্ট্রগুলোর সহোযোগিতার দরকার রয়েছে। তিনি বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে আমাদের অতন্ত্য সৌহাদ্যপূর্ণ সম্পর্ক। আমাদের বন্ধু রাষ্ট্রগুলোর আলোচনা-সমালোচনা সবসময়ই আমরা খতিয়ে দেখি এবং সমাধানের চেষ্টা করি। মন্ত্রী জিএসপি বিষয়ে বলেন, জিএসপির বিষয়টি রিভিউ চলছে এবং হেয়ারিং হয়ে গেছে তারপরেও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে সঙ্গে আমরা আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছি। এর আগে আমি যুক্তরাষ্ট্র সফরকালে শুধু মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গই আলোচনা করিনি, বিভিন্ন কংগ্রেস ম্যানের সঙ্গেও আলোচনা হয়েছে। তিনি বলেন, গার্মেন্টস শিল্পের দুর্ঘটনা বিষয়ে আমি সরকারের দিক থেকে আমাদের অবস্থা তুলে ধরেছি। আমরা আশা করি আমরা তাদের কাছ থেকে যে ইতিবাচক সাড়া পেয়েছি, তাতে যা নির্ধারিত হবে তা আমাদের জন্য ইতিবাচক হবে।

আরও পড়ুন

সর্বশেষ