সোমবার, মে ২০, ২০২৪
প্রচ্ছদপ্রবাসী সময়হিমালয়ের লীলাভূমি ভুটানে আড়ম্বরে বাংলাদেশ জাতীয় দিবসের অভ্যর্থনা অনুষ্ঠিত

হিমালয়ের লীলাভূমি ভুটানে আড়ম্বরে বাংলাদেশ জাতীয় দিবসের অভ্যর্থনা অনুষ্ঠিত

বাংলাদেশের মহান স্বাধীনতা দিবস এবং জাতীয় দিবস-২০২৪ উপলক্ষ্যে হিমালয়ের লীলাভূমি ভুটানে অনুষ্ঠিত হলো বাংলাদেশ জাতীয় দিবসের অভ্যর্থনা অনুষ্ঠান।  ১৯ এপ্রিল ২০২৪ ভুটানের থিম্পুতে  টার্মা লিঙ্কা হোটেলে থিম্পুতে একটি সংবর্ধনার বাংলাদেশ দূতাবাস আয়োজন করে এই বিশেষ অভ্যর্থনা অনুষ্ঠান। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ভুটানের রানীমাতা দরজি ওয়াংমো ওয়াংচুক। এছাড়া রাজ পরিবার থেকে প্রিন্সেস  সোনম ডেচান ওয়াংচুক এবং দাশো জিগমে সিংয়ে ওয়াংচুক উপস্থিত ছিলেন। বাংলাদেশের পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেন অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে ভুটানের মন্ত্রীবর্গ, সচিবগণ, রাষ্ট্রদূত, কূটনীতিক, বুদ্ধিজীবীসহ বিপুল সংখ্যক গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন। উল্লেখ্য যে, এ বছর মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবসের বিশেষ অতিথি হিসেবে ভুটানের রাজা বাংলাদেশ সফর করেন। গর ২৫-২৮ মার্চ অনুষ্ঠিত এই সফরে ভুটানের উচ্চ পর্যায়ের প্রতিনিধিদল রাজার সফর সঙ্গী ছিলেন।  সেকারণে থিম্পুস্থ  বাংলাদেশ দূতাবাস জাতীয় দিবসে অভ্যর্থনা গতকাল আয়োজন করে।

অনুষ্ঠানে ভুটানের রানী মাতা এ উপলক্ষে বাংলাদেশের জনগণকে অভিনন্দন জানান এবং গত মার্চের শেষ সপ্তাহে ভুটানের রাজার বাংলাদেশে ফলপ্রসূ সফরের কথা স্মরণ করেন। তিনি বাংলাদেশ-ভুটান সম্পর্কের চলমান অগ্রগতির জন্য সন্তোষ প্রকাশ করেন এবং বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর প্রজ্ঞাময় নেতৃত্বের ভূয়সী প্রশোংসা করেন। বিশেষ অতিথি পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেন তার বক্তব্যে বাংলাদেশের পররাষ্ট্রনীতির রূপরেখা তুলে ধরেন। তিনি বাংলাদেশ ও ভুটানের জনগণের স্বার্থে দুদেশের মধ্যে চলমান কূটনৈতিক সম্পর্ক, পারস্পরিক ভ্রাতৃত্ববোধ এবং  অগ্রগতির কথা বিশদভাবে তুলে ধরেন। বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত শিবনাথ রায় বাংলাদেশ-ভুটান দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের বিস্তারিত তুলে ধরে স্বাগত বক্তব্য প্রদান করেন। তিনি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন এবং আশা প্রকাশ করেন যে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও ভুটানের মহামহিম রাজার নেতৃত্বে বাংলাদেশ-ভুটান সমৃদ্ধির পথে এগিয়ে যাবে।

অনুষ্ঠানে দুদেশের মধ্যে বিদ্যমান চমৎকার সম্পর্কের স্মারক হিসেবে বাংলাদেশের পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেন ভুটানের রানীমাতা দরজি ওয়াংমো ওয়াংচুক এবং  প্রিন্সেস সোনম দেচান ওয়াংচুককে ‘বাংলাদেশ-ভুটান মৈত্রী ক্রেস্ট’ তুলে দেন। অনুষ্ঠান সঞ্চালন করেন কাউন্সলর সুজন দেবনাথ।

দুদেশের সাংস্কৃতিক বিনিময়ের প্রতীক হিসেবে অনুষ্ঠানে ভুটানের রয়্যাল একাডেমি অফ পারফর্মিং আর্টস এর শিল্পীগণ বাংলাদেশী গান ও নৃত্য এবং বাংলাদেশী শিল্পীগণ ভুটানি দেশাত্মবোধক গান পরিবেশন করে। সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান সমন্বয় করে ভুটানের রয়্যাল একাডেমি অফ পারফর্মিং আর্টস এবং জি-মিউজিক।

আরও পড়ুন

সর্বশেষ