ব্রেকিং নিউজ

প্রথম ম্যাচে স্বরূপেই ফিরলো মাশরাফি বাহিনী

লক্ষ্য ২৬২ রান। তা খুব একটা বড় নয়। সম্প্রতি দারুণ ক্রিকেট খেলা ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে এই রান তাড়া করতে নেমে শুরুটা সতর্কভাবেই করে লাল-সবুজের দল। খুবই সাবধানে খেলেন ওপেনার তামিম ইকবাল ও সৌম্য সরকার। এই দুজনের ব্যাটে একটা শক্ত ভীতের ওপর দাঁড়িয়ে যায় বাংলাদেশ । সে ধারাবাহিকতায় ত্রিদেশীয় সিরিজে নিজেদের প্রথম ম্যাচে হেসে-খেলেই জয় তুলে নিয়েছে বাংলাদেশ। মঙ্গলবার ডাবলিনে অনুষ্ঠিত এই ম্যাচে বাংলাদেশ জিতেছে আট উইকেটের বড় ব্যবধানে। দুর্দান্ত  খেলা সৌম্য ও তামিম ছাড়া আর কোরো উইকেট হারায়নি বাংলাদেশ।

দলীয় ১৪৪ রানের মাথায় দুর্দান্ত খেলা সৌম্য সাজঘরে ফিরে যান রোস্টন চেইসের শিকার হয়ে। অল্প কিছুক্ষণ পর তামিমও প্যাভিলিয়নে ফিরেন। এই দুজনেই ফিরলেও দলের ওপর কোনো প্রভাব পড়েনি তা। সৌম্য সাজঘরে ফেরার আগে ঝুলিতে পুরেন দারুণ একটি ইনিংস। করেন ৬৮ বলে ৭৩ রান। যাতে ৯টি চার ও একটি ছক্কার মার রয়েছে।  দারুণ উজ্জ্বল ছিল তামিমের ব্যাটও। তিনি ১১৬ বলে ৮০ রান। সাতটি চারের মার ছিল তাঁর এই ইনিংসে। পরে সাকিব ৬১ বলে ৬১ রান এবং মুশফিক ৩২ রান করে অপরাজিত থাকেন।

এর আগে ওয়েস্ট ইন্ডিজ প্রথমে ব্যাট করতে নেমে করে ২৬১ রান। ওপেনার আমব্রিস ৩৮ রান করে মিরাজের শিকার হয়ে প্রথম সাজঘরে ফিরেন। এর পর ড্যারেন ব্রাভো আউট হন ব্যক্তিগত ১ রানের মাথায় সাকিব আল হাসানের বলে।

কিন্তু একপাশ আগেলে রাখেন হোপ। আগের ম্যাচে আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে ১৭০ রানের চমৎকার ইনিংস খেলা এই ডানহাতি ব্যাটসম্যান মাশরাফির শিকার হয়ে ফেরার আগে ১০৯ রানের চমৎকার একটি ইনিংস খেলেন। আর রোস্টন চেইসকে ৫১ রানের মাথায় আউট করেন বাংলাদেশ অধিনায়ক। এর পরই পুরো ম্যাচের চিত্র পাল্টে যায়।  অন্যরা আসা-যাওয়া ব্যস্ত থাকায় খুব বেশি দূর এগুতে পারেনি ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

শেষ পর্যন্ত ১০ ওভারে ৪৯ রান দিয়ে তিন উইকেট তুলে নেন তিনি। সাইফউদ্দিন ও মুস্তাফিজুর রহমান দুটি এবং সাকিব আল হাসান ও মেহেদী হাসান মিরাজ একটি করে উইকেট নিয়ে অধিনায়ককে যোগ্য সহায়তা দেন।

Please follow and like us:

About bdsomoy