ব্রেকিং নিউজ

রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির উদ্যোগে নানা আয়োজনে বাংলা নববর্ষকে বরণ

‘দুর হোক সকল অকল্যাণ এসো গাহি মঙ্গলের জয়গান’ সমস্ত অশুভকে দূরে ঠেলে নতুন দিনের প্রত্যাশায় নানা আয়োজনে বাংলা নববর্ষ ১৪২৬ বঙ্গাব্দকে বরণ নিলো বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি। দিবসটি উপলক্ষে দেবাসীকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির মাননীয় চেয়ারম্যান হাফিজ আহমদ মজুমদার, এমপি।

received_292465324984362গ্রামীণ ও বাঙ্গালী অবয়বে সাজানো হয় এই আয়োজন। বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির জাতীয় সদর দফতর চত্বরে নানা পসরা সাজিয়ে বসে সোসাইটির যুব ও স্বেচ্ছাসেবকরা। বাহারি রকমের পিঠা-পুলি,চিড়া, মুড়ি,কদমা,তরমুজ ছাড়াও মাটির সানকি, মাটির থালা, ছোটদের ডুগি-তবলা, পান্তাসহ নানা গ্রামীণ সংস্কৃতির নিদর্শন স্থান পায় এই পসরায়।

আজ রবিবার সকালে সোসাইটির চত্বরে তৈরী বর্ষবরণ মঞ্চে বৈশাখী গান দিয়ে শুরু হয় বর্ষবরণ অনুষ্ঠান। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির মাননীয় চেয়ারম্যান জনাব হাফিজ আহমদ মজুমদার, এমপি, ট্রেজারার এ্যাডভোকেট তৌহিদুর রহমান, জার্মান রেড ক্রসের প্রেসিডেন্ট মিজ Gerde Hasseleldt, Dr. Johannes Richert, ভাইস সেক্রেটারি, জার্মান রেডক্রস, বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির ব্যবস্থাপনা পর্ষদের সম্মানিত সদস্য মিজ রাজিয়া সুলতানা লুনা, আইএফআরসির, বাংলাদেশ কান্ট্রি অফিসের প্রধান মি: আজমত উল্লা, মি: ইখতিয়ার আস্লানোভ, হেড অব ডেলিগেশন, আইসিআরসি, বাংলাদেশ, বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির মহাসচিব মো: ফিরোজ সালাহ্ উদ্দিন, উপ-মহাসচিব মো: রফিকুল ইসলামসহ সোসাইটির বিভিন্ন স্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারী ও যুব স্বেচ্ছাসেবকরা উপস্থিত ছিলেন।

সোসাইটির মহাসচিব বলেন, জীর্ণতাকে পিছে ফেলে,সাফল্য- ব্যর্থতার সালতামারিতে বৈশাখ মানুষকে নতুনভাবে জাগ্রত করে। মানব কল্যাণে নিয়োজিত বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির কর্মীরা নতুন বছরে নতুন উদ্যমে এগিয়ে যাবে। তিনি বলেন, সোসাইটি প্রতিবছরই বর্ষবরণ অনুষ্ঠান করে আসছে। এবছর শুধুমাত্র জাতীয় সদর দফতরে নয়, দেশের ৬৪ জেলা ৬৮টি জেলা রেড ক্রিসেন্ট ইউনিটেও বর্ষবরণ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির যুব ও স্বেচ্ছাসেবক বিভাগের দায়িত্বরত পরিচালক এস এম আহমদ বলেন, বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি বাঙ্গালী সংস্কৃতিকে প্রাধান্য দিয়েই প্রতিবছর বর্ষবরণ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। পান্তা ইলিশের পাশাপাশি খাদ্য তালিকায় স্থান পায় পিঠা, চিড়া, মুড়ি, মুড়কি ও বাহারি রকমের ফল। তিনি, বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির বর্ষবরণের এই ধারা অব্যাহত রাখার দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

Please follow and like us:

About bdsomoy