ব্রেকিং নিউজ

সুদানের ক্ষমতাচ্যুত প্রেসিডেন্ট বশিরকে গ্রেফতার

উত্তর আফ্রিকার দেশ সুদানে অভ্যুত্থানের মাধ্যমে ক্ষমতাচ্যুত প্রেসিডেন্ট বশিরকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

দেশটির প্রতিরক্ষামন্ত্রী আওয়াদ মোহাম্মদ আহমেদ ইবনে আউফ এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। খবর রয়টার্সের।

রয়টার্স জানায়, দেশটির দারফুর অঞ্চলে গণহত্যার অভিযোগে গ্রেফতার করা হয়েছে।

এ অভ্যুত্থানের মাধ্যমে সুদানে প্রেসিডেন্ট ওমর আল বশিরের ৩০ বছরের শাসনের অবসান হয়েছে। বৃহস্পতিবার দেশটিতে সামরিক অভ্যুত্থানের মাধ্যমে অন্তর্বর্তীকালীন সরকার গঠন করা হয়েছে। দেশটির সেনাবাহিনী ঘোষণা করেছে দুই বছর সামরিক শাসনের পরে তারা নির্বাচনের দিকে যাবে।

এদিকে সুদানের রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনের দেশটির প্রতিরক্ষমন্ত্রী আওয়াদ মোহাম্মদ আহমেদ ইবনে আউফ বলেন, ৭৫ বয়সী বশিরকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তিনি নিরাপদে আছেন। দেশে সেনাবাহিনী পরিষদ চলমান রয়েছে।

এ ছাড়া আউফ তিন মাসের রাষ্ট্রীয় জরুরি অবস্থা, দেশব্যাপী যুদ্ধবিরতি এবং সংবিধান স্থগিতের ঘোষণা দেন। তিনি আরও বলেন, ২৪ ঘণ্টা দেশের বিমানবন্দর বন্ধ থাকবে এবং পরবর্তী নিদের্শনা না দেওয়া পর্যন্ত সীমান্তে চলাচল বন্ধ থাকবে।

স্থানীয়দের সূত্রের বরাত দিয়ে রয়টার্স জানায়, বশির প্রেসিডেন্টের বাসভবনে নিরাপত্তা বাহিনীর কঠোর নজরদারিতে রয়েছে। তার ছেলে সিদ্দিক আল-মেহদি দেশটির প্রধান বিরোধী দল উমা পার্টির প্রধান।

এদিকে সুদানের সরকারবিরোধী বিক্ষোভের নেতৃত্বে থাকা সংগঠনগুলো শুধু বেসামরিক অন্তর্বর্তীকালীন সরকারের কাছে ক্ষমতা হস্তান্তর করতে রাজি আছে।

২০০৬ সালে শুরু হওয়া বিদ্রোহের সময় সুদানের দারফুর অঞ্চলে গণহত্যার অভিযোগে বশিরকে আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতে দোষী সাব্যস্ত করা হয়েছে। ওই সময়ে আনুমানিক ৩ লাক মানুষ মৃত্যুবরণ করেছেন।

এর আগে দেশটির রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনের চারপাশে সেনা মোতায়েন করা হয়। টিভি চ্যানেলটিতে বলা হয়, শিগগিরই একটি গুরুত্বপূর্ণ ঘোষণা দেবে সশস্ত্র বাহিনী। এর জন্য প্রস্তুত থাকুন।

রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনের এ ঘোষণার পর দেশটির রেডিও ও টেলিভিশন চ্যানেলগুলোতে বাজানো হচ্ছে দেশাত্মবোধক গান। তুলে ধরা হচ্ছে সামরিক বাহিনীর বীরত্বগাথা।

প্রেসিডেন্ট ওমর আল বশিরের পদত্যাগের দাবিতে ব্যাপক আন্দোলনের মধ্যেই এমন পরিস্থিতি তৈরি হয়।

এর মধ্য দিয়ে প্রেসিডেন্ট ওমর আল বশিরের ৩০ বছরের শাসনের অবসান হয়। ১৯৮৯ সাল থেকে সুদানের ক্ষমতায় আছেন ওমর আল বশির।

পাউরুটির দাম বাড়িয়ে দেয়ায় গত বছরের ডিসেম্বর থেকে তার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ আন্দোলন শুরু হয়েছে। এ ছাড়া দেশটির এটিএমগুলো নগদশূন্য করে দেয়া হয়।

সূত্র: রয়টার্স

Please follow and like us:

About bdsomoy