বৃহস্পতিবার, এপ্রিল ২৫, ২০২৪
প্রচ্ছদদেশজুড়েযৌনপল্লীর মেয়ের যুক্তরাষ্ট্রের শিক্ষাবৃত্তি

যৌনপল্লীর মেয়ের যুক্তরাষ্ট্রের শিক্ষাবৃত্তি

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্কঃ (বিডি সময় ২৪ ডটকম)

মানুষ তার স্বপ্নের সমান বড়। আর এ কথাটিকেই বাস্তবে রূপদান করেছেন ভারতের এক যৌনকর্মীর মেয়ে শ্বেতা। মুম্বাইয়ের এক যৌনপল্লীতে জন্মানোর পরেও যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কের প্রখ্যাত বার্ড কলেজের শিক্ষাবৃত্তি পেয়েছেন তিনি। স্বপ্ন ছুঁতে কোনো কিছুই বাধা হয়ে দাঁড়াতে পারেনি তার সামনে।

নিউইয়র্কের ওই কলেজে তিনি এখন মনোবিজ্ঞান বিষয়ে পড়াশোনা করবেন। ভবিষ্যতে কাজ করতে চান যৌন নিপীড়নের শিকার নারীদের নিয়ে। যৌনকর্মী ও তাদের ছেলেমেয়েদের জন্য একটি আবাসস্থল চালানোরও স্বপ্ন রয়েছে তার।

তার পুরো নাম শ্বেতা কাত্তি। ভারতের মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষায় সর্বোচ্চ স্থানও অর্জন করেছেন মেধাবী এই ছাত্রী। এরই মধ্যে নিউজউইক ম্যাগাজিনের আলোচিত ২৫ নারীর তালিকায় স্থান পেয়েছেন শ্বেতা। যে তালিকায় রয়েছেন পাকিস্তানের আলোচিত কিশোরী মালালা ইউসুফজাইও।

এই অর্জনের পুরো কৃতিত্বই শ্বেতা দিতে চান তার মাকে। তিনি বলেন, ‘মা আমাকে সব সময় লেখাপড়া করতে উৎসাহ দিয়েছেন। সামনে এগিয়ে যেতে অনুপ্রাণিত করেছেন। নিজের চেষ্টাতেই মানুষ বড় হয়, বিখ্যাত হয় এমনটাই আমাকে বলেছেন মা।’

তার এই অর্জনে তিনি কৃতজ্ঞ সেই যৌনপল্লীর কর্মীদের কাছেও। তিনি বলেন, ‘আমার মাকে সকাল ৯টা থেকে ৭টা পর্যন্ত কাজ করতে হতো। যৌনপল্লীর কর্মীরাই আমাকে স্কুলের পোশাক পরিয়ে দিতেন। আমার দেখাশোনাও করতেন তারা।’

ছোটবেলায় নিজেও যৌন নিপীড়নের শিকার হন তিনি। দশ বছর বয়সে একবার তার সৎবাবা ধর্ষণ করে তাকে। যৌনপল্লীতেও তাকে কিছু খারাপ পরিস্থিতির মুখোমুখি হতে হয়।

তিনি বলেন, ‘ওখানে অনেক লোকই আমাকে তাদের সাথে বিছানায় যাওয়ার প্রস্তাব দিত। আমি ছোট থাকায় জানতামও না কীভাবে এরকম পরিস্থিতি মোকাবেলা করতে হয়।’

তবে বর্তমানে তার দিন বদলে গেছে। যুক্তরাষ্ট্রে পড়াশোনা নিয়ে এখন দারুণ উচ্ছ্বসিত শ্বেতা। তিনি বলেন, ‘আমি ঠিক জানি না ওখানে আমি কী করব। তবে নতুন দেশ, নতুন লোক, নতুন সংস্কৃতির লোকদের সাথে মেশাটা বেশ রোমাঞ্চকর হবে বলেই মনে হচ্ছে।’ সূত্র: ওয়েবসাইট।

আরও পড়ুন

সর্বশেষ