মঙ্গলবার, মে ২১, ২০২৪
প্রচ্ছদজাতীয়ব্রিটিশ পার্লামেন্টের নিয়মেই নির্বাচন হবে - প্রধানমন্ত্রী

ব্রিটিশ পার্লামেন্টের নিয়মেই নির্বাচন হবে – প্রধানমন্ত্রী

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্কঃ (বিডি সময় ২৪ ডটকম)

যুক্তরাজ্যে সফররত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আজ সোমবার লন্ডনে দেশটির কয়েকজন পার্লামেন্ট সদস্যের উদ্দেশে বলেছেন, ‘আপনাদের দেশে যেভাবে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়, বাংলাদেশেও সেভাবে আগামী সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।’ ব্রিটিশ পার্লামেন্টের কয়েকজন সদস্যের সঙ্গে এক প্রাতরাশ বৈঠকে মতবিনিময়ের সময় শেখ হাসিনা এ কথা বলেন।
বাংলাদেশের সাম্প্রতিক কিছু নির্বাচন, সেগুলোতে বিভিন্ন দলের অংশগ্রহণ এবং প্রতিযোগিতায় বিরোধী দল-সমর্থিত প্রার্থীদের নির্বাচিত হওয়ার দৃষ্টান্ত তুলে ধরে হাসিনা বলেন, নির্বাচন কমিশন সম্পূর্ণ স্বাধীনভাবে কাজ করছে।
বৈঠকে যুদ্ধাপরাধীদের বিচার ও বাংলাদেশে ধর্মীয় মৌলবাদীদের হুমকির বিষয়গুলোও আলোচিত হয়। বৈঠকের পর ব্যারনেস মঞ্জিলা পলাউদ্দিন উপস্থিত সাংবাদিকদের জানান, তাঁরা আশাবাদী, সবার অংশগ্রহণের মধ্য দিয়ে নির্বিঘ্নে ও সুষ্ঠুভাবে আগামী নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের বিষয়ে তাঁরা মৃত্যুদণ্ডের বিধান সমর্থন করেন না বলে তাঁদের অবস্থানের কথা প্রধানমন্ত্রীকে জানিয়েছেন। বাংলাদেশে ধর্মীয় উগ্রবাদীদের সাম্প্রতিক উত্থানে তাঁরা উদ্বেগের কথাও জানান।
ব্যারনেস পলাউদ্দিন ছাড়াও লর্ড আহমেদ, লর্ড বিলিমরিয়া, জিম ফিটজপ্যাট্রিক, রুশনারা আলী এ বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন। তবে ব্রিটিশ পার্লামেন্টের বাংলাদেশবিষয়ক অল-পার্টি গ্রুপের চেয়ারপারসন অ্যান মেইনসহ কনজারভেটিভ পার্টির যেসব এমপি বাংলাদেশ সম্পর্কিত অনুষ্ঠানে সচরাচর অংশ নেন, তাঁদের এই সভায় দেখা যায়নি।
আজ বিকেলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বেলারুশের রাজধানী মিনস্কের উদ্দেশে রওনা হওয়ার কথা রয়েছে।

টিউলিপের বিবাহোত্তর সংবর্ধনায় শেখ হাসিনা
প্রধানমন্ত্রী হাসিনা রোববার সন্ধ্যায় তাঁর ছোট বোন শেখ রেহানার বড় মেয়ে টিউলিপ সিদ্দিকের বিবাহোত্তর সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে অংশ নিয়েছেন। সেখানে তিনি নবদম্পতির জন্য সবার দোয়া চেয়েছেন। পূর্ব লন্ডনের ওয়েস্টহ্যাম এলাকায় ইমপ্রেশন ইভেন্টস ভেন্যুতে অনুষ্ঠিত এই অনুষ্ঠানে কয়েক শ অতিথি উপস্থিত ছিলেন। তাঁঁদের মধ্যে ব্রিটেনের বিরোধী দল লেবার পার্টির অন্তত ছয়জন পার্লামেন্ট সদস্য ছিলেন। তবে ক্ষমতাসীন দল টোরি পার্টির কাউকে দেখা যায়নি।
টিউলিপ ও তাঁর স্বামী ক্রিশ্চিয়ান সেন্ট জন পার্সি প্রথাগত বাঙালি বিয়ের সাজে অনুষ্ঠানে উপস্থিত হন। এ সময় নবদম্পতির পাশে ছিলেন কনের মা শেখ রেহানা, খালা শেখ হাসিনা, ভাই সজীব ওয়াজেদ জয় ও তাঁর স্ত্রী, বোন পুতুল ও তাঁর স্বামী, ভাই রেজোয়ান সিদ্দিক ববি ও ছোট বোন। এ ছাড়া প্রধানমন্ত্রীর সফরসঙ্গী পররাষ্ট্রমন্ত্রী দীপু মনি, যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের নেতারা এবং লন্ডনের বাংলাদেশি জনগোষ্ঠীর নেতৃত্বস্থানীয় ব্যক্তিরা এই সংবর্ধনায় যোগ দেন।
টিউলিপ স্থানীয় লেবার পার্টির রাজনীতিতে সক্রিয় এবং লন্ডনের ইজলিংটন বরার একজন নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি। তিনি আগামী পার্লামেন্ট নির্বাচনে লেবার পার্টির একজন মনোনয়নপ্রত্যাশী। তাঁর স্বামী একজন সরকারি কর্মকর্তা।
অনুষ্ঠানে টিউলিপ ও তাঁর স্বামী ক্রিশ্চিয়ান বিয়ের অনুষ্ঠানে পাওয়া সব উপহার বাংলাদেশের সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের কল্যাণে দান করার ঘোষণা দেন। শিশুদের কল্যাণে কর্মরত একটি প্রতিষ্ঠান ‘স্ট্রিট ওয়াইজ’-এর কাছে তাঁরা এগুলো হস্তান্তরের কথা জানিয়েছেন।
এ অনুষ্ঠান আয়োজনে যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের বেশ কয়েকজন নেতা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন।

আরও পড়ুন

সর্বশেষ