মঙ্গলবার, মে ২১, ২০২৪
প্রচ্ছদখেলার সময়বান্ধবীদের হোটেলে প্রবেশ নিষিদ্ধ হচ্ছে, নিষিদ্ধ হচ্ছে মধ্যরাতের পার্টি

বান্ধবীদের হোটেলে প্রবেশ নিষিদ্ধ হচ্ছে, নিষিদ্ধ হচ্ছে মধ্যরাতের পার্টি

স্পট ফিক্সিং কেলেঙ্কারির জেরে বন্ধ হয়ে গেল আইপিএলের বিখ্যাত মোচ্ছব, ‘আফটার ম্যাচ পার্টি’৷ আইপিএলের ছ’বছরের ইতিহাসে এই প্রথম এই ধরনের পার্টি নিষিদ্ধ করা হচ্ছে৷ এ ছাড়াও এ বার থেকে ক্রিকেটারদের কোনও বান্ধবী আর হোটেলে ক্রিকেটারদের রুমে যেতে পারবেন না৷ এই সিদ্ধান্তও আগে নেওয়া হয়নি আইপিএলে৷ গোয়েন্দাদের মতে, বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই এই ধরনের পার্টিকেই ‘টোপ’ দেওয়ার মঞ্চ হিসেবে ব্যবহার করে বুকিরা৷ ভোররাত ধরে চলা এই সব পার্টি এখন আর সন্দেহের উর্ধ্বে নয়৷

স্পট ফিক্সিং কেলেঙ্কারির জেরে সাবধানতা এতেই শেষ হচ্ছে না৷ ক্লাব হাউসের লোয়ার টিয়ারে নজরদারির জন্য বসছে একগুচ্ছ সিসিটিভি৷ একেবারে সামনের দিকে কিছু আসন ছেড়ে রাখতে বলা হয়েছে৷ ম্যাচ ও প্র্যাক্টিসের সময় সেখানে থাকবেন সাদা পোশাকের গোয়েন্দারা৷ ক্রিকেটাররা প্র্যাক্টিস শেষে একবার ড্রেসিংরুমে ঢুকে পড়লে ফের মাঠে ফিরতে পারবেন না৷ ক্লাব হাউস ও বাইপাসের ধারে টিম হোটেলকে মোটামুটি দুর্গ বানিয়ে ফেলা হচ্ছে৷ হোটেলে কোনও বহিরাগতকে ঢুকতে দেওয়া হচ্ছে না৷ এমনকী, হোটেলের আবাসিকদের ক্ষেত্রেও কড়াকড়ি করা হচ্ছে৷ চাইলেও কেউ ক্রিকেটারদের অটোগ্রাফ নিতে পারবেন না৷

শহরে আসছেন দুর্নীতি দমন শাখার গোয়েন্দারা, আসছেন স্পট ফিক্সিং কেলেঙ্কারির তদন্তের দায়িত্বপ্রাপ্ত বোর্ডের রবি সাওয়ানি৷ ফাইনাল পর্যন্ত শহরে থাকবেন বলে শোনা যাচ্ছে৷ লালবাজারে গিয়ে কলকাতা পুলিশ কর্তাদের সঙ্গে তাঁর বৈঠক করার কথা৷

এ দিকে, রবিবার ইডেনে ফাইনালে খেলার ছাড়পত্র পেলেও এখনই শহরে আসছে না চেন্নাই সুপার কিংস৷ ধোনির টিমের আসার কথা ম্যাচের আগের দিন, শনিবার৷ কিন্তু প্লে অফ ম্যাচ খেলতে বুধবার বিকেলেই কলকাতায় চলে এল মুম্বই ইন্ডিয়ান্স৷ এ দিন অবশ্য কোনও প্র্যাক্টিস করেননি তাঁরা৷

সচিনদের শহরে পা রাখার আগেই অবশ্য আইপিএল ফাইনাল নিয়ে উত্তেজনা তুঙ্গে৷ মহামেডান ক্লাবের টিকিট কাউন্টারে সকাল থেকেই ছিল দীর্ঘ লাইন৷ তবে আধ ঘন্টার মধ্যেই সব টিকিট শেষ হয়ে যায়৷ টিকিট না পেয়ে বিক্ষোভ দেখানো জনতাকে নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আসতে পুলিশকে লাঠিচার্জও করতে হয়েছে৷ এক সিএবি কর্তা জানালেন, ফাইনালে ক্লাব হাউসের টিকিটের প্রচুর চাহিদা।

আরও পড়ুন

সর্বশেষ