রবিবার, মে ১৯, ২০২৪
প্রচ্ছদজাতীয়আ.লীগের ৬৪ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী: বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা জানালেন প্রধানমন্ত্রী

আ.লীগের ৬৪ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী: বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা জানালেন প্রধানমন্ত্রী

pm 23-6-2013আওয়ামী লীগের ৬৪তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে রবিবার সকালে ধানমন্ডির ৩২ নম্বরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
শ্রদ্ধা নিবেদেন শেষে জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশন করা হয়। এর আগে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন করেন দলের সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের সভাপতিম-লীর সদস্য ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মহীউদ্দীন খান আলমগীর, কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী, ডাকমন্ত্রী সাহারা খাতুন, যোগাযোগমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, দলের উপদেষ্ঠা পরিষদের সদস্য আমির হোসেন আমু, তোফায়েল আহমেদ প্রমুখ।
এছাড়া যুবলীগ, ছাত্রলীগ, স্বেচ্ছা সেবক লীগ, কৃষক লীগ, তাঁতি লীগ, জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, মহিলা আওয়ামী লীগ, যুব মহিলা লীগ, বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটসহ বিভিন্ন সংগঠন ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করে।
দিবসটি উপলক্ষে দলের পক্ষ থেকে নানা কর্মসূচি নেওয়া হয়েছে।
উল্লেখ্য, ১৯৪৯ সালের ২৩ ও ২৪ জুন এক কর্মী সম্মেলনে পুরান ঢাকার ঐতিহ্যবাহী রোজ গার্ডেনে দেশের অন্যতম প্রাচীন এই রাজনৈতিক দলটির আত্মপ্রকাশ ঘটে। প্রথমে দলটির নাম ছিল আওয়ামী মুসলিম লীগ। পরে দলের নাম থেকে মুসলিম শব্দটি বাদ দেওয়া হয়।

প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা বলেছেন, জনগণের ভোটে আওয়ামী লীগ আবারও ক্ষমতায় আসবে। ২০২১ সালে স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী পালন করবে আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন সরকার। তিনি বলেছেন, যখনই আওয়ামী লীগ ক্ষতায় আসে, তখনই জনগণ কিছু পায়। কারণ আওয়ামী লীগ জনগণের দল। জনগণকে নিয়েই রাজনীতি করে।

আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষ্যে জাতীয় সংসদে এক বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের জন্ম ইতিহাস আওয়ামী লীগই সৃষ্টি করেছে। কিন্তু দেশের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রকারীরা সব সময়েই আওয়ামী লীগকে দেশ থেকে নিশ্চিহ্ন কওে দিতে চেয়েছে। সেজন্য ’৭৫ এ বঙ্গবন্ধু পরিবারকে হত্যা ও জেল হত্যা কা- ঘটিয়েছে। কিন্তু তারা সফল হতে পারেনি। জনগণকে নিয়ে আওয়ামী লীগ দেশের রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় এসেছে। বঙ্গবন্ধু দেশ স্বাধীন করার পর যুদ্ধাপরাধীদেও বিচারের কাজ শুরু করেছিল। কিন্তু ষড়যন্ত্র করে তা হতে দেওয়া হয়নি। কিন্তু বর্তমান সরকার ক্ষমতায় এসে সেই কাজে হাত দিয়েছে। খুব শিগগিরই যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের রায়ও কার্যকর হবে।

আরও পড়ুন

সর্বশেষ