মঙ্গলবার, মে ২১, ২০২৪
প্রচ্ছদইন্টারভিউচট্টগ্রামে সার্কুলার ট্রেনের যাত্রা শুরু কাল

চট্টগ্রামে সার্কুলার ট্রেনের যাত্রা শুরু কাল

ইলেক্ট্রিক ট্রেনের যুগে প্রবেশ করছে চট্টগ্রাম। ডিজেল ইলেক্ট্রিক মাল্টিপল এ ট্রেন চীনে ডেমু নামে বেশ পরিচিত হলেও চট্টগ্রাম শহরের উপকন্ঠে এ ট্রেন সার্কুলার ট্রেন নামে চলবে। আগামীকাল শনিবার সকাল ১১ টায় বটতলী রেল স্টেশনে রেলমন্ত্রী এ ট্রেনের উদ্বোধন করবেন। গত ২৪ এপ্রিল কমলাপুর  রেলস্টেশনে বেশ জাঁকজমকপূর্ণ অনুষ্ঠানে  প্রধানমন্ত্রী  শেখ হাসিনা  ডেমু ট্রেন উদ্বোধন করেন।   রেলওয়ে সূত্র জানায়, ২০ সেট ডেমু দিয়ে পর্যায়ক্রমে ঢাকা, চট্টগ্রামসহ মিটারগেজ  রেললাইন রয়েছে এমন এলাকায় ডেমু  ট্রেন চালু করা হবে। এ দেশে নতুন এবং দেখতে আকর্ষণীয় বলে এ   ট্রেন চালু করাকে সরকার একটি অর্জন হিসেবে দেখাতে চায়। অস্ট্রেলিয়া, আয়ারল্যান্ড, চীন, জাপান, রাশিয়া, লন্ডন, কানাডা, সুইজারল্যান্ডে ডেমু বেশ জনপ্রিয়।
প্রতি সেট ডেমুতে দুই দিকে দুটি ইঞ্জিন এবং মাঝখানে একটি বগি থাকে। বগির পাশাপাশি ইঞ্জিনেও কয়েকজন যাত্রী বহন করা যাবে। দুই দিকে ইঞ্জিন থাকায় গন্তব্যে পৌঁছে ইঞ্জিন ঘোরানোর ঝামেলা পোহাতে হবে না। দেশে প্রচলিত ট্রেনের  ক্ষেত্রে যাত্রী ওঠানো-নামানো ও ইঞ্জিন  ঘোরানোর জন্য ২০ মিনিট বরাদ্দ রাখা হয়। এ ক্ষেত্রে ডেমুতে ১০ মিনিট সময় কম লাগবে। এ  ট্রেন তুলনামূলকভাবে দ্রুতগতিরও। ঘণ্টায় সর্বোচ্চ ৮০ কিলোমিটার গতিতে চলতে পারবে। চট্টগ্রাম শহর ছাড়াও চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়, চট্টগ্রাম- লাকসাম ও চট্টগ্রাম দোহাজারি রুটে এ  ট্রেন চালু করা হবে।
চীনের তাংসাং রেলওয়ে ভেহিকেল কোম্পানি লিমিটেড থেকে ২০ সেট ডেমু ট্রেন কিনতে ২০১১ সালের ৪ আগস্ট চুক্তি করে  রেলওয়ে। ২০  সেট ডেমু আমদানিতে ব্যয় হচ্ছে ৪২৬ কোটি টাকা। ভ্যাট ও কর বাদে প্রতি সেট ডেমুর দাম পড়বে ২১ কোটি ৩০ লাখ টাকা। পুরো টাকাই সরকারের রাজস্ব খাত থেকে খরচ করা হচ্ছে। দেশে নতুন আসা এ ডেমু ট্রেনের সাথে বাংলাদেশ রেলওয়ের অবকাঠামোগত বেশ কিছু পার্থক্য রয়েছে।
পূর্বাঞ্চল রেলের  মহাব্যবস্থাপক তফাজ্জল হোসেন জানান, উদ্বোধনের পর চট্টগ্রাম শহরের নির্দিষ্ট রুট ও চট্টগ্রাম লাকাসাম রুটে ২ সেট ট্রেন চলবে। বাকী ২ সেট চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় রুটে চলবে। তিনি বলেন, এ ট্রেন নিয়ে বিভিন্ন কথা বলা হচ্ছে। নতুন কিছু সৃষ্টি করতে  গেলে সামান্য ত্রুটি-বিচ্যুতি থাকে।  দেশে এ ট্রেন সম্পূর্ণ নতুন। সমস্যা হলে তা সমাধান করা হবে। ২০ সেট ডেমু ট্রেনের মধ্যে ইতিমধ্যে ১৪ সেট ট্রেন এসেছে। বাকী ৬ সেট ট্রেন আগামী মাসের মধ্যে আসবে বলে আশা করা হচ্ছে। ঢাকা-নারায়নগঞ্জ রুটের পর আগামীকাল থেকে চট্টগ্রাম প্রবেশ করতে যাচ্ছে ডেমুর জগতে। মানুষের সাড়া পেলে ট্রেনের সংখ্যা বাড়ানো হবে। তিনি বলেন, এ ট্রেন চালু হলে মাত্র ১৫ টাকায় ৩০কিলোমিটার পথ যাওয়া যাবে। সময়ও সাশ্রয় হবে।

যেসব রুটে চলবে : ডিজেল ইলেকট্রিক মাল্টিপল ইউনিট (ডেমু) চট্টগ্রাম শহরে নির্দিষ্ট রুটে সার্কুলার ট্রেন নামে চলবে। পূর্বাঞ্চল রেলের মহাব্যবস্থাপক তফাজ্জল হোসেন জানান, আপাতত চার সেট ট্রেন রাখা হয়েছে। এক সেট সার্কুলার ট্রেন হিসেবে চট্টগ্রাম স্টেশন থেকে পাহাড়তলী, কৈবল্ল্যাধাম, ফৌজদার হাট, সিজিপিওয়ে, সল্টগোলা, এসআরবি চট্টগ্রাম, ঝাউতলা, ষোলশহর ও জানালি হাট  থেকে আবার চট্টগ্রাম স্টেশনে ফেরত আসবে। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় রুটে  ট্রেন চলাচলের বিষয়ে সিদ্ধান্ত আরো কয়দিন পর নেয়া হবে। এ রুটে দুই সেট ট্রেন চলাচল করবে। বাকী এক সেট ট্রেন  চট্টগ্রাম-লাকাসাম রুটে চলবে। এছাড়া ডেমু ট্রেনের অন্যান্য রুটগুলো হল ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ-ঢাকা (৪ সেট), ঢাকা-ভৈরব-ঢাকা (২ সেট), ঢাকা-জয়দেবপুর-ঢাকা (২ সেট), চট্টগ্রাম -দোহাজারী-চট্টগ্রাম (২ সেট), চট্টগ্রাম-লাকসাম-চট্টগ্রাম (২ সেট), লাকসাম-নোয়াখালী-লাকসাম (১ সেট) ও লাকসাম-চাঁদপুর-লাকসাম (১ সেট)। এ ছাড়া পশ্চিমাঞ্চলের লালমনিরহাট-বুড়িমারী-লালমনিরহাট (২ সেট), লালমনিরহাট-দিনাজপুর-লালমনিরহাট (২ সেট) ও  লালমনিরহাট-বগুড়া-লালমনিরহাট (২ সেট) রুটেও এ ট্রেন চালানো হবে।

Train Demu

আরও পড়ুন

সর্বশেষ