মঙ্গলবার, এপ্রিল ২৩, ২০২৪
প্রচ্ছদদেশজুড়েআইসিএলের এমডিকে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদ দুদকের

আইসিএলের এমডিকে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদ দুদকের

ICL-group-Safikulআইডিয়াল কো-অপারেটিভ সোসাইটি লিমিটেড (আইসিএল) গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) এইচএনএম শফিকুর রহমানকে আড়াই ঘণ্টা জেরা করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন(দুদক)। গ্রাহকের টাকা আত্মসাতের অভিযোগে দুদকের অনুসন্ধান টিম তাকে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদ করে। মঙ্গলবার  দুপুর একটা থেকে শুরু হয়ে বেলা সাড়ে ৩টায় তার জিজ্ঞাসাবাদ শেষ হয়।

দুদকের উপ-পরিচালক ও মুখপাত্র প্রণব কুমার ভট্টাচার্য  বলেন, এ বিষয়ে গঠিত দুদকের অনুসন্ধান দলের প্রধান ও উপ-পরিচালক নাছির উদ্দিনের নেতৃত্বে একটি টিম তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছেন।

দুদক জানায়, তার কাছে বেশ কিছু নথি চায় অনুসন্ধান টিম। এর মধ্যে উল্লেখ যোগ্য হচ্ছে- গ্রুপটির ২০০১ থেকে ২০১২ সালের বিশেষ অডিট রিপোর্ট, সকল ব্যাংক হিসাব ও স্টেটমেন্ট এবং কুমিল্লা শাখা ও গ্রাহকদের ঠিকানা।

তবে জিজ্ঞাসাবাদ আইসিএলের এমডি দুদকের চাহিদা অনুযায়ী নথিপত্র অনুসন্ধান কর্মকর্তাদের সামনে উপস্থাপন করতে পারেননি। দুদকের কাছে আসা অভিযোগ থেকে জানা গেছে, অতিরিক্ত মুনাফার লোভ দেখিয়ে প্রায় পাঁচ লাখ গ্রাহকের কাছ থেকে তিন হাজার কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছে আইসিএল। কয়েক মাস ধরে তালা ঝুলছে রাজধানীর পুরানা পল্টনে প্রতিষ্ঠানের প্রধান কার্যালয়সহ দেশের বিভিন্ন স্থানে ৩৬টি শাখা কার্যালয়ে। এ প্রতিষ্ঠানে বিনিয়োগকারীদের অধিকাংশই নিম্নবিত্ত ও মধ্যবিত্ত পরিবারের।

আইডিয়াল কো-অপারেটিভ সোসাইটি ২০০১ সাল থেকে দ্বিগুণ মুনাফার লোভ দেখিয়ে গ্রাহকদের কাছ থেকে ডিপিএস, মাসিক মুনাফা, দ্বিগুণ বৃদ্ধি আমানত, শিক্ষা আমানত, আবাসন আমানত, ব্যবসায়িক আমানত, দেনমোহর আমানত, হজ আমানত, কোটিপতি ডিপোজিট স্কিম, লাখপতি ডিপোজিট স্কিম প্রকল্পের নামে অর্থ সংগ্রহ করে।

আরও পড়ুন

সর্বশেষ