মঙ্গলবার, মে ২১, ২০২৪
প্রচ্ছদটপশেখ হাসিনাকে হত্যা করে কি বিএনপির এক দফা বাস্তবায়ন করতে চায় ?...

শেখ হাসিনাকে হত্যা করে কি বিএনপির এক দফা বাস্তবায়ন করতে চায় ? : ওবায়দুল কাদেরের

শেখ হাসিনাকে হত্যা করে বিএনপি এক দফা বাস্তবায়ন করতে চায় কিনা, সে প্রশ্ন রেখেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। ওবায়দুল কাদের বলেন, শেখ হাসিনাকে হত্যার হুমকির প্রতিবাদে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত পিটার হাসও ভালোভাবে নেননি। কিন্তু বিএনপির কোন দায়িত্বশীল নেতা এ পর্যন্ত কোন ব্যবস্থা নেননি।

তিনি বুধবার সকালে রাজধানীর সড়ক ভবনে বারৈয়ারহাট রামগড় সড়ক প্রশস্তকরণ কাজের ভিত্তিপ্রস্থর স্থাপন শেষে উপস্থিত সাংবাদিকদের কাছে বিএনপি নেতাদের প্রতি এ প্রশ্ন রাখেন।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, বিএনপির একজন যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বলেছেন- এটি মুখ ফসকে বলেছে। যিনি শেখ হাসিনাকে হত্যার হুমকি দিয়েছেন তিনি বিএনপির কোন সাধারণ কর্মী নন। জেলার আহ্বায়ক ও কেন্দ্রীয় নেতা। তিনি যা বলেছেন সেটা বিএনপিরই কথা। ২৭ দফা, ১০ দফা নয়, এক দফায় এসেছে তারা। তাহলে কি ধরে নিবো – শেখ হাসিনাকে হত্যা করে তারা এক দফা বাস্তবায়ন করতে চায়। এ ব্যাপারে বিএনপি কী বলে সেটা শুনতে চাই। শেখ হাসিনারকে হত্যায় বিএনপির মৌন সম্মতি আছে। এটা স্লিপ অফ টাং নয়। তিনি আরও বলেন, আগামী নির্বাচন পর্যন্ত সতর্ক থাকতে হবে। যারা নির্বাচন প্রতিরোধ করতে আসবে তাদের প্রতিরোধ করা হবে।

এ সময় গাজীপুর সিটি করপোরেশনের নির্বাচন নিয়ে নির্বাচন কমিশনের উপর আস্থা নিয়ে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, নির্বাচন হওয়ার পর সমালোচনা করেন তারা কিভাবে নির্বাচন করছে। বিএনপি দলীয় পরিচয় গোপন করে সব সিটি নির্বাচনে প্রার্থী দিয়েছে।

গতকাল ঢাকায় বিারটিসির গাড়িতে আগুন ও পুলিশের উপর হামলা প্রসঙ্গে সেতুমন্ত্রী বলেন, আন্দোলনের নামে বিএনপি নৈরাজ্য করবে, সন্ত্রাস করবে এটা তাদের পুরনো স্বভাব। উদ্ভূত পরিস্থিতি বলে দিবে কোন পরিস্থিতিতে কীভাবে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ব্যবস্থা নেবে। আর রাজনীতির একটা ভাষা আছে। রাজনৈতিকভাবে সেটা মোকাবেলা করব। আমরা সহিংসতায় যাব না।

এর আগে বাংলাদেশ ও ভারতের যৌথ উদ্যোগে বারৈয়ারহাট রামগড় সড়কের প্রশস্তকরণ কাজের ভিত্তিপ্রস্তর উদ্বোধন করেন ওবায়দুল কাদের। এসময় উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতের হাইকমিশনার প্রনয় ভার্মা, সড়ক ও মহাসড়ক বিভাগের সচিব এবিএম আমিন উল্লাহ নুরী সহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাবৃন্দ।

আরও পড়ুন

সর্বশেষ