সোমবার, ফেব্রুয়ারি ২৬, ২০২৪
প্রচ্ছদটপদুদকের চাকরি ফিরে পাচ্ছেন না শরীফ

দুদকের চাকরি ফিরে পাচ্ছেন না শরীফ

চাকরি ফিরে পাচ্ছেন না দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) সাবেক উপ-সহকারী পরিচালক শরীফ উদ্দিন। বিনা নোটিশে অপসারণ সংক্রান্ত দুদক কর্মচারী বিধিমালা আপিল বিভাগে বহাল থাকায় আর চাকরিতে ফিরতে পারছেন না তিনি। এর আগে, কোনো কারণ দর্শানো (শোকজ) ছাড়া দুর্নীতি দমন কমিশনের কর্মচারীকে অপসারণ করা সংক্রান্ত ৫৪(২) বিধি বাতিলের বিরুদ্ধে আপিল করা হয়।

বৃহস্পতিবার (১৬ মার্চ) সে আপিল খারিজ করে দেন প্রধান বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকীর নেতৃত্বাধীন সাত বিচারপতির আপিল বিভাগ। এর আগে, র‍্যাবের অভিযানে উদ্ধার হওয়া প্রায় ৯৪ লাখ টাকার চালান বাংলাদেশ ব্যাংক কিংবা রাষ্ট্রীয় কোষাগারে জমা না দিয়ে নিজের কাছে রেখে দেয়ার পাশাপাশি আদালতের অনুমতি ছাড়াই ব্যাংক হিসাব বন্ধ রাখার মতো গুরুতর ৫টি অভিযোগ উঠায় চাকরিচ্যুত করা হয় দুদক কর্মকর্তা শরীফ উদ্দিনকে। এছাড়া ঘুষ না পেয়ে শরীফ হয়রানি করেছেন এমন ছয়জন লিখিত অভিযোগও করেছেন দুদকের কাছে। এসব অভিযোগের সত্যতা মেলায় শরীফকে দুদক থেকে চাকরিচ্যুত করা হয়।

এছাড়া গত বছরের ১৬ জুন শরীফকে চট্টগ্রাম থেকে পটুয়াখালী বদলি করা হয়। কিন্তু শরীফ কর্মস্থলে যোগ না দিয়ে বদলি আদেশ চ্যালেঞ্জ করে রিট করেন। সেই সঙ্গে চাকরিবিধি লঙ্ঘন করে নির্ধারিত সময়ের এক মাস পর ই-মেইলে যোগদানপত্র পাঠানো এবং আরও এক মাস পর সশরীরে যোগ দেয়াকে শরীফের দোষ হিসেবেই দেখছে দুদক।

দুদক কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, চট্টগ্রাম ও কক্সবাজারের অন্তত ছয়জন ভুক্তভোগী চাহিদা অনুযায়ী ঘুষ না পেয়ে শরীফ উদ্দিন তাদের ভয়ভীতি দেখানোর পাশাপাশি হয়রানি করেছেন বলে লিখিত অভিযোগ করেন।

চাকরিবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগে দুদক ১৬ ফেব্রুয়ারি এক প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে পটুয়াখালী জেলা সমন্বিত কার্যালয়ে কর্মরত উপ-সহকারী পরিচালক মোহাম্মদ শরীফ উদ্দিনকে চাকরি থেকে অপসারণ করে। তবে চট্টগ্রাম ও কক্সবাজারে দায়িত্ব পালনের সময় শরীফের বেশকিছু অনুসন্ধান এবং পদক্ষেপ প্রভাবশালীদের বিরুদ্ধে যায়। এ কারণে তাকে চাকরি থেকে অপসারণ করা হয় বলেও অভিযোগ ওঠেছে।
আরও পড়ুন

সর্বশেষ