ব্রেকিং নিউজ

হেফাজতের আমির জুনায়েদ বাবুনগরী, মহাসচিব নুর হোসাইন কাসেমী

আল্লামা আহমদ শফীর মৃত্যুর পর হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের আমিরের পদে জুনায়েদ বাবু নগরীকেই দায়িত্ব দিল হেফাজতের কাউন্সিল। একই সাথে নূর হোসাইন কাসেমীকে মহাসচিব ঘোষণার মধ্য দিয়েই শেষ হলো বহুল আলোচিত হেফাজতে ইসলামের এই কাউন্সিল। ১৫ নভেম্বর বিকেল ২ টার পর চট্টগ্রামের দারুল উলুম মঈনুল ইসলাম হাটহাজারী মাদ্রাসার শিক্ষা ভবনে অনুষ্ঠিত দ্বিতীয় অধিবেশনে আমির পদে সংগঠনটির আগের কমিটির মহাসচিব জুনায়েদ বাবুনগরী ও নতুন মহাসচিব পদে নূর হোসাইন কাসেমির নাম ঘোষণা করা হয়। জুনায়েদ বাবুনগরী চট্টগ্রামের হাটহাজারী মাদ্রাসার শিক্ষা পরিচালক ও ঢাকার জামিয়া মাদানিয়া বারিধারা মাদ্রাসার প্রিন্সিপাল হিসেবে কর্তব্যরত রয়েছেন। এছাড়াও নূর হোসাইন কাসেমি হেফাজতের ঢাকা মহানগর কমিটির আমির ও ২০ দলীয় জোটের শরীক জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশের মহাসচিব। হেফাজতের গঠনতন্ত্র অনুযায়ী কোন রাজনৈতিক দলের পদধারী নেতা হেফাজতের মূল নেতৃত্বে জায়গা পাওয়ার সুযোগ না থাকলেও সেই রীতি ভেঙ্গে মহাসচিব নির্বাচিত হলে কাসেমী।

এর আগে সকাল সাড়ে ১০ টায় কার্যক্রম শুরুর পর দুপুর ১ টার দিকে সম্মেলনের প্রথম অধিবেশন সমাপ্ত হয়। স্বাগত বক্তব্যে বাবুনগরীর হেফাজতের পূর্বের কমিটিকে বিলুপ্ত ঘোষণা করেন। প্রথম অধিবেশন শেষে দ্বিতীয় অধিবেশনে কমিটির নাম প্রস্তাবের জন্য মাওলানা মুহিব্বুল্লাহ বাবু নগরী, আল্লামা জুনাইদ বাবুনগরী, নুর হুসাইন কাসেমী, আতাউল্লাহ হাফেজ্জী, মাহফুজুল হক, মাওলানা আব্দুল আওয়াল নারায়নগন্জ, মাওলানা ইয়াহইয়া হাটহাজারী, মাওলনা নাসির উদ্দীন মুনীর, মাওলানা মুনির হুসাইন, আজিজুল হক ইসলামাবাদী, মাওলানা জুনাঈদ আল হাবীবকে দায়িত্ব দেয়া হয়। তাদের বৈঠকের পর পর ২ টার দিকে দ্বিতীয় অধিবেশনে নতুন আমির ও মহাসচিবের নাম ঘোষণা করা হয়।

মাদ্রাসা প্রাঙ্গনে দুপুর ২টার দিকে সম্মেলনের সভাপতি মহিবুল্লাহ বাবুনগরীর পক্ষে বেফাকুল মাদারিসিল আরাবিয়া বাংলাদেশের (বেফাক) মহাসচিব মাওলানা মাহফুজুল হক এ ঘোষণা দেন। একই সঙ্গে সংগঠনের মোট ১৫১ জনের পূর্ণাঙ্গ কমিটিও ঘোষণা করা হয়। সারা দেশের বিভিন্ন জেলার প্রায় সাড়ে তিনশ কাউন্সিলর এতে ভোট প্রদান করেন।

About bdsomoy