ব্রেকিং নিউজ

করোনা সংকট মোকাবিলায় স্থানান্তর ঠেকাতে সরকারকে আরো কঠোর অবস্থানে যেতে হবে

করোনা সংকট মোকাবিলায় স্থানান্তর ঠেকাতে সরকারকে আরো কঠোর অবস্থানে যেতে হবে বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। ঘর থেকে বের হয়ে যাতে আটকা পড়তে না হয় সে জন্য সকলে সর্তকও করছেন তিনি৷

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী বলেন, সরকার স্থানান্তর বন্ধে কঠোর অবস্থানে রয়েছে। ঘর থেকে বের হয়ে কেউ আটকা পড়বেন না। সংকট মোকাবিলায় সরকারকে সহযোগিতা করুন, অন্যথায় সরকারকে আরো কঠোর অবস্থানে যেতে হবে।

২০ মে সংসদ ভবনস্থ সরকারি বাসভবন থেকে এক ভিডিওবার্তায় ওবায়দুল কাদের এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, বারবার অনুরোধ করা সত্ত্বেও যারা দলে দলে গ্রামমুখী হচ্ছেন, নানা কৌশলে স্থানান্তরের চেষ্টা করছেন- তাদের উদ্দেশ্যে বলতে চাই, সরকারি স্থানান্তর বন্ধে কঠোর অবস্থানে রয়েছে। আবারো অনুরোধ করছি নিজ নিজ অবস্থানে থাকুন, ঘর থেকে বের হয়ে পথিমধ্যে আটকে পড়ার ঝুঁকি নেবেন না। তখন এদিক-ওদিক দুদিকই হারাবেন এবং ভোগান্তিতে পড়বেন। সংকট মোকাবিলায় সরকারকে সহযোগিতা করুন অন্যথায় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে সরকারকে আরো কঠোর অবস্থানে যেতে হবে।

শ্রমিকদের বকেয়া বেতন পরিশোধে শিল্পমালিকদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, আমরা উদ্বেগের সঙ্গে লক্ষ্য করছি এখনো অনেক শিল্প-কারখানা মালিক শ্রমিকদের বেতন-ভাতা পরিশোধ করেননি। শ্রমিকদের মাঝে বিক্ষোভ-অস্থিরতা বিরাজ করছে। প্রতিদিনই শ্রমিকরা রাস্তায় নেমে আসছে যা সংকটকালে অনাকাঙ্ক্ষিত। আমি গার্মেন্টসসহ অন্যান্য কারখানা মালিকদের অনুরোধ করছি যারা এখনো বেতন-ভাতা পরিশোধ করেননি, অবিলম্বে শ্রমিকদের বেতন-ভাতা পরিশোধ করুন।

বিশ্ব করোনা পরিস্থিতির কথা তুলে ধরে তিনি বলেন, বিভিন্ন দেশ আমাদের চেয়ে সংক্রমণ ও মৃত্যুতে অনেক ভয়াবহ অবস্থার মুখোমুখি। উন্নত বিশ্বের দেশগুলোতে হাজার হাজার মানুষ মৃত্যুবরণ করছে। আমি জানতে চাই পৃথিবীর কোন দেশে মৃত্যুর মিছিল ঠেকাতে পেরেছে? অর্থনৈতিক বাস্তবতায় দেশগুলো লকডাউন শিথিল করেছে। সরকার নানান সীমাবদ্ধতা সত্ত্বেও সংক্রমণ রোধে আপ্রাণ চেষ্টা করছে।

বিএনপির সমালোচনা করে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, আন্দোলন ও নির্বাচনের ব্যর্থ হয়ে বৈশ্বিক সংকটকে পুঁজি করে রাজনীতির অশুভ খেলায় মেতে উঠেছে বিএনপি। শেখ হাসিনা সরকার যখন সকলকে নিয়ে সম্মিলিত ও সমন্বিত প্রয়াস চালিয়ে যাচ্ছে তখন বিএনপির রাজনৈতিক প্রতিহিংসা ছাড়া আর কিছুই দেখতে পায় না। জনগণ জানতে চায়, কথামালা চাতুরী আর প্রেসব্রিফিং ছাড়া বিএনপি অসহায় মানুষের জন্য আর কী করেছে? চৌকস কথার ফুলঝুরি আর গলাবাজি ছাড়া দেশ ও জাতিকে বিএনপি কী দিতে পেরেছে? মির্জা ফখরুল সাহেব ক্ষণে ক্ষণে বিদেশের কথা বলেন। অনেক দেশে বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলো করোনা তহবিল গঠন করে জনগণের পাশে দাঁড়িয়েছে। আপনারা কী করেছেন তা জাতি জানতে চায়। বরাবরের মতো নিজেদের ব্যর্থতা ঢাকার জন্য সরকারের বিরুদ্ধে মিথ্যাচারের মরিচা ধরা অকার্যকর হাতিয়ার ব্যবহার করছে।

Please follow and like us:

About bdsomoy