ব্রেকিং নিউজ

করোনাভাইরাস প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণে সারাদেশে বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি

করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণে সারাদেশে কাজ করছে বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি। রাজধানীসহ সারাদেশে করোনাভাইরাস প্রতিরোধে ও জনসচেতনতা বাড়াতে দিনরাত কাজ করে যাচ্ছে রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির স্বেচ্ছাসেবকসহ কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ। এছাড়াও কক্সবাজারের বিভিন্ন ক্যাম্পে আশ্রয় নেওয়া মিয়ানমারের জনগোষ্ঠীর মাঝে জনসচেতনতা বৃদ্ধি ও অন্যান্য প্রস্তুতিমূলক কাজ করছে বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি।

received_556992611601843

এদিকে,রাজধানীর বিভিন্ন হাসপাতাল, মসজিদ, ধর্মীয় উপসানালয়, কাঁচাবাজারসহ ভাইরাস ছড়ানোর ঝুঁকি প্রবণ গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনায় জীবাণুনাশক স্প্রে করা, হ্যান্ড স্যানিটাইজার, ও মাস্ক বিতরণ এবং প্রচার-প্রচারণাসহ বিভিন্ন সচেতনতামূলক কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে। এছাড়াও দেশের ৬৪ জেলার ৬৮টি রেড ক্রিসেন্ট ইউনিটের মাধ্যমেও করোভাইরাস প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণে সরকারের পাশাপাশি নানা কার্যক্রম চলমান রয়েছে। স্থানীয় প্রশাসনের সাথে সমন্বয় করে এসব কার্যক্রম বাস্তবায়ন করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন মাঠ পর্যায়ে কর্মরত রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির দায়িত্বপ্রাপ্ত স্বেচ্ছাসেবক ও কর্মকর্তাগণ।

বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি জানায়, করোনাভাইরাস সম্পর্কে জনসচেতনতা বাড়ানো এবং প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণে রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি রাজধানীসহ সারাদেশের তৃণমূল পর্যায়ে (কমিউনিটি পর্যায়ে) কাজ করছে। এছাড়াও জরুরি পরিস্থিতি মোকাবিলায় জাতীয় সদর দপ্তরে দুটি অ্যাম্বুলেন্সসহ ৬৮টি জেলা রেড ক্রিসেন্ট ও জাতীয় সদর দপ্তরে প্রশিক্ষিত স্বেচ্ছাসেবক ও কর্মকতাদের প্রস্তুত রাখা হয়েছে।

আজ ২৯ মার্চ রবিবার বিকেলে বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির স্বেচ্ছাসেবকরা বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক ভবনসহ রাজধানীর বিভিন্ন স্থানে করোনাভাইরাস প্রতিরোধে জীবণুনাশক স্প্রে কার্যক্রম পরিচালনা করে। এছাড়াও আজ রবিবার দিবাগত রাতে বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি ও বিদ্যানন্দ ফাউন্ডেশনের স্বেচ্ছাসেবকরা যৌথভাবে কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতাল, কুয়েত মৈত্রী হাসপাতাল, ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, বক্ষব্যাধি হাসপাতাল, স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালসহ রাজধানীর ৮ টি হাসপাতালে জীবাণুনাশক স্প্রে করবে।

রেড ক্রিসেন্টের জেলা পর্যায়ে দায়িত্বরত কর্মকর্তা জানান, সারাদেশের ৬৪ জেলার ৬৮টি রেড ক্রিসেন্ট জেলা ইউনিটের সবকয়টিতে তারা করোনাভাইরাস মোকাবিলায় প্রয়োজনীয় সচেতনতামূলক কার্যক্রম পরিচালনা করছে। জনসাধারণের নিয়মিত হাত ধোয়ার অভ্যাস গড়তে বেসিন স্থাপন, হাসপাতাল ও মেডিকেল কলেজে জীবাণুনাশক স্প্রে করা, সচেতনতামূলক লিফলেট বিতরণ ও সামজিক দূরত্ব বজায় রাখাসহ সচেনতা বাড়াতে শহরের বিভিন্ন স্থানে মাইকিং করা হচ্ছে। এছাড়াও চট্রগ্রাম রেড ক্রিসেন্ট ইউনিটের উদ্যোগে গত ২৭ মার্চ শুক্রবার সিটি এলাকার বিভিন্ন মসজিদে মুসল্লিদের মাঝে হ্যান্ড স্যানিটাইজজার ও মাস্ক বিতরণ করা হয়।

অপরদিকে, কক্্রবাজার জেলায় চলমান পপুলেশন মুভমেন্ট অপারেশনের কমিউনিকেশন সেকশন থেকে থেকে জানানো হয়, করোনাভাইরাস প্রতিরোধে ইতোমধ্যে তারা প্রয়োজনীয় নানা উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। সবকয়টি ক্যাম্পে দায়িত্বরত ডাক্তার, নার্স, স্বাস্থ্য স্টাফ, কমিউনিটি হেলথ্ ফ্যাসিলিটিটর, হেলথ্ মোবিলাইজার, বিভিন্ন প্রোগ্রামের ফোকাল পয়েন্ট, রেড ক্রিসেন্ট ও সিপিপি স্বেচ্ছাসেবকদের প্রশিক্ষণ প্রদান এবং তাদের স্বাস্থ্য সুরক্ষায় হ্যান্ড স্যানিটাইজার, সাবান ও মাস্ক দেওয়া হয়েছে। এসব প্রশিক্ষিতরা ঘরে ঘরে গিয়ে প্রত্যেকের মাঝে কারোনাভাইরাস সম্পর্কে সচেতনতা বৃদ্ধিতে কাজ করছে। এছাড়াও ওয়াশ কার্যক্রমের আওতায় ক্যাম্পে বসবাসরতদেরকে নিয়মিতভাবে হাত ধোয়ার অভ্যাস করাতে হ্যান্ড ওয়াশিং কার্যক্রম পরিচালনা করা হচ্ছে।

Please follow and like us:

About bdsomoy