ব্রেকিং নিউজ

রাজধানীর হাসপাতালকে জীবাণুমুক্ত করতে যৌথভাবে কাজ শুরু করেছে বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি ও বিদ্যানন্দ ফাউন্ডেশন

করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব কমিয়ে আনার গুরুত্বপূর্ণ ও প্রয়োজনীয় তথ্য প্রদান কার্যক্রমের পাশাপাশি রাজধানীর বিভিন্ন হাসপাতালকে করোনাভাইরাসের জীবাণুমুক্ত করার কার্যক্রম শুরু করেছে বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি । আর এই কাজটিতে সহযোগিতা করছে বেসরকারি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন বিদ্যানন্দ ফাউন্ডেশন। বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি ও বেসরকারি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন বিদ্যানন্দ ফাউন্ডেশন যৌথভাবে রাজধানীর হাসপাতালকে জীবণুমুক্ত করতে জীবাণুনাশক স্প্রে করার কাজটি করবে বলে জানিয়েছে উভয় সংস্থা। সোমবার দিবাগত রাতে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে করোনাভাইরাস সংক্রমনরোধে জীবাণুনাশক স্প্রে কার্যক্রম শুরু করা হয়।

90557094_1287157785004990_3495937541666766848_nএসময় বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির ভাইস চেয়ারম্যান ও আইএফআরসির গভার্নিং বোর্ডের সম্মানিত সদস্য প্রফেসর ডা: মো: হাবিবে মিল্লাত, এমপি, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পরিচালক, পরিকল্পনা ও উন্নয়ন ডা: ইকবাল কবির, যুগ্ম ফোকাল পার্সন কোয়ান্টাইন ম্যানেজমেন্ট ডা: মোহাম্মদ আজিজুর রহমান সিদ্দিক, বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির যুব ও স্বেচ্ছাসেবক বিভাগের পরিচালক ইমাম জাফর শিকদার, বিদ্যানন্দ ফাউন্ডেশনের ভাইস চেয়ারম্যান ফারুখ আহমেদসহ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি ও স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তা ও স্বেচ্ছাসেবকরা উপস্থিত ছিলেন। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে কার্যক্রম শেষে স্বেচ্ছাসেবকরা ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে যায়। সেখানে তারা মধ্যরাত পর্যন্ত হাসপাতালের জরুরী বিভাগসহ বিভিন্ন স্থানে জীবাণুনাশক স্প্রে কার্যক্রম পরিচালনা করে। বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির ভাইস চেয়ারম্যান প্রফেসর ডা: মো: হাবিবে মিল্লাত, এমপি বলেন, বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি যে মানুষের কল্যাণে কাজ করে আজকের এই জীবাণুনাশক স্প্রে কার্যক্রম তার উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত। এই জীবাণুনাশক স্প্রে কার্যক্রম করোনাভাইরাস সংক্রমক প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রাখবে। তিনি আরও বলেন করোনার প্রাদুর্ভাবের কারণে শুধু বাংলাদেশ নয় সারা পৃথিবীতে আমরা একটা অবস্থা বিরাজ করছি, যেখানে সত্যিকার অর্থেই একে অপরকে সহযোগিতা করা দরকার। বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি ও বিদ্যানন্দ ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে ঢাকা শহরের প্রত্যোকটি বড় হাসপাতাল এবং পর্যায়ক্রমে জেলা পর্যায়ের হাসপাতাল গুলোতে জীবাণুমুক্ত করতে স্বেচ্ছাসেবকরা কাজ করবে। সত্যিই আমরা গর্বিত স্বেচ্ছাসেবকদের জন্য যারা নিজের জীবনকে বিপন্ন করে বাজি রেখে এই কাজটি করছে। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পরিচালক, পরিকল্পনা ও উন্নয়ন ডা: ইকবাল কবির, রাজধানীর যেসব হাসপাতালে কোয়ান্টাইন বা আইসোলেশন ইউনিট খোলা হয়েছে এসকল হাসপাতালসহ রাজধানীর সকল হাসপাতালকে জীবাণুমুক্ত করতে সারারাত বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি ও বিদ্যানন্দ ফাউন্ডেশনের জীবাণুনাশক স্প্রে কার্যক্রম পরিচালনা করবে। সময়োপযোগি এই ধরনের কার্যক্রম গ্রহণের ফলে বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটিকে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পক্ষ থেকে ধন্যবাদ জানায়। বিদ্যানন্দ ফাউন্ডেশনের ভাইস চেয়ারম্যান ফারুখ আহমেদ বলেন,” জীবনের ঝুঁকি নিয়ে যাঁরা রাতদিন সাধারণ মানুষের সেবার পাশাপাশি করোনাভাইরাসে আক্রান্তদের সেবায় নিরলস কাজ করে যাচ্ছেন তাঁদের স্বাস্থ্য সুরক্ষায় এটি একটি গ্রহণযোগ্য পদক্ষেপ এবং তাঁদেরকে এই আত্মত্যাগে অনুপ্রেরণা যোগাবে। একই সাথে স্বেচ্ছাসেবার অনন্য দৃষ্টান্ত স্বরূপ, এই উদ্যোগ দেশের অন্যান্য সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান, স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন অনুপ্রাণিত হয়ে নিজ নিজ উদ্যোগে আসন্ন করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় বিশেষ ভূমিকা রাখবে। ” উল্লেখ্য, বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির স্বেচ্ছাসেবকবৃন্দ ও বিদ্যানন্দ ফাউন্ডেশনের স্বেচ্ছাসেবীরা যৌথভাবে এই জীবাণুনাশক স্প্রে কার্যক্রম পরিচালনা করবে। যেসব স্বেচ্ছাসেবক এই কাজের সাথে সম্পৃক্ত থাকবেন তাদের সবধরনের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হবে। এই কার্যক্রমে অংশগ্রহণকারী রেড ক্রিসেন্টের সকল স্বেচ্ছাসেবকদের জন্য হলি ফ্যামিলি রেড ক্রিসেন্ট মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে বিশেষ কোয়ান্টাইনের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে বলে সোসাইটির পক্ষ থেকে জানানো হয়। – প্রেস বিজ্ঞপ্তি

 

Please follow and like us:

About bdsomoy