ব্রেকিং নিউজ

হঠাৎই বাফুফে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দিলেন রুহুল আমিন

দীর্ঘ দুই বছরের বেশি সময় ধরে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন (বাফুফে) নির্বাচনের সভাপতি পদে প্রার্থী হবেন বলে প্রচার চালিয়ে যাচ্ছিলেন তরফদার মো. রুহুল আমিন। কিন্তু রোববার সন্ধ্যায় হঠাৎই নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দিলেন তিনি। বাফুফের বর্তমান সভাপতি কাজী মো. সালাউদ্দিনকে মোবাইল ফোনে তিনি নির্বাচনে অংশ নেবেন না বলে জানান রুহুল আমিন। এতদিন প্রচার চালিয়ে কেন সরে গেলেন তরফদার রুহুল আমিন? ক্রীড়াঙ্গনে এ প্রশ্ন এখন সবার মুখে মুখে। সোমবার দুপুরে বনানীতে নিজ ব্যবসায়িক কার্যালয়ে আনুষ্ঠানিক সংবাদ সম্মেলন করে সেই প্রশ্নের জবাব দিয়েছেন তরফদার রুহুল আমিন। বাফুফের অভ্যন্তরীণ রাজনৈতিক অস্থিরতাকে এমন সিদ্ধান্ত নেয়ার পেছনে দায়ী বলে জানালেন তিনি।

সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, ‘বাফুফের নির্বাচন কেন্দ্র করে চরম অস্থিরতা তৈরি হয়েছে। কাজী সালাউদ্দিনের পক্ষের লোকজনের সঙ্গে আমার পক্ষের লোকজন নানা বিতর্কে জড়িয়ে পড়ছেন। তাই মনে হয়েছে, সভাপতি পদে আমার নির্বাচন করাটা ফুটবলের জন্য শুভ নয়। এ জন্য সভাপতি পদে দাঁড়ানো সিদ্ধান্ত থেকে সরে এসেছি। তিনি বলেন, ‘আমি সভাপতি পদে নির্বাচন করব না। এটি আমার ব্যক্তিগত সিদ্ধান্ত। কোনো চাপে এ সিদ্ধান্ত নিইনি আমি। নির্বাচন করা না করা সবার গণতান্ত্রিক অধিকার। সে জন্য আমার সংগঠনের কেউ নির্বাচনে অংশ নিলে আমি না করব না। তবে সভাপতি পদে নির্বাচন না করলেও নির্বাচনী মাঠ ছাড়ছেন না বলে জানিয়েছেন রুহুল আমিন। তিনি বলেন, ‘সভাপতি পদে প্রার্থী হব না বলে এই নয় যে, নির্বাচনী মাঠ ছেড়ে চলে গেছি। কারা কোন পদে নির্বাচন করবে সেটি আমরা পরে ঠিক করব। সংবাদ সম্মেলনে বাফুফের বর্তমান কমিটির সহ-সভাপতি মহিউদ্দিন মহিসহ জেলা ও বিভাগীয় ফুটবলের সংগঠক ও কমকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

প্রসঙ্গত বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের জেলা ও বিভাগীয় ফুটবল সংগঠক পরিষদের চেয়ারম্যান এবং ফুটবল ক্লাব সমিতির চেয়ারম্যান তফাদার রুহুল আমিন। বর্তমান সভাপতি কাজী সালাউদ্দিন আবারও নির্বাচন করবেন বলে ঘোষণা দিলে তার প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী হিসেবে ঘোষণা দিয়েছিলেন তরফদার রুহুল আমিন। কিন্তু রোববার আকস্মিকভাবে বাফুফে নির্বাচনে সভাপতি পদ থেকে দূরে সরে গিয়ে সালাউদ্দিনের সঙ্গেই থাকবেন বলে জানান তরফদার।

Please follow and like us:

About bdsomoy