ব্রেকিং নিউজ

এশিয়ান ইউনিভার্সিটি ফর উইমেন স্কলারশীপ ফান্ডে মিতসুবিশি ফুসো’র স্কলারশীপ প্রদান

এশিয়ান ইউনিভার্সিটি ফর উইমেন স্কলারশীপ ফান্ডে মিতসুবিশি ফুসো’র স্কলারশীপ প্রদান।জাপানের বিশ্ববিখ্যাত মোটরযান তৈরিকারী ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান মিতসুবিশি ফুসো ট্রাক এন্ড বাস কর্পোরেশান (এমএফটিবিসি) আর্ন্তজাতিক বিশ্ববিদ্যালয় এশিয়ান ইউনিভার্সিটি ফর উইমেনের স্কলারশীপ ফান্ডে অনুদান স্পন্সর করেছে । এই অনুদানের মাধ্যমে এশিয়া এবং মধ্য এশিয়ার পিছিয়ে পড়া নারীদের শিক্ষা ক্ষেত্রে নতুন ধার উন্মোচিত হয়েছে । যেটার মাধ্যমে তাদের উচ্চ শিক্ষার নতুন ক্ষেত্র সৃষ্টি করবে ।এশিয়ান ইউনিভার্সিটি ফর উইমেন এতদঅঞ্চলের প্রথম স্বতন্ত্র লিবারেল আর্টস ও বিজ্ঞান ভিত্তিক আর্ন্তজাতিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান যেটি আর্ন্তজাতিক পর্যায়ে নারীদের শিক্ষা ও নেতৃত্ব উন্নয়ন ও বিকাশে অবদান রাখছে ,যার শেকড় রয়েছে এশিয়ার জনগণের আকাঙ্খা ও প্রত্যাশা । বর্তমানে বিশ্বের ২০ টি দেশের বিভিন্ন জাতি,ধর্ম ও গোষ্ঠীর,মেয়েরা এশিয়ান ইউনিভার্সিটি ফর উইমেন (এ.ইউ ডব্লিউ) এ অধ্যায়ন করছে । যাদের প্রধান প্রয়াস হচ্ছে শিক্ষার মাধ্যমে আলোকিত হওয়া । এই বিশ্ববিদ্যালয়টি এতদঅঞ্চল তথা এশিয়া এবং মধ্য এশিয়ার নারীদের নারী নেতৃত্ব,উদ্যোক্তা এবং সমাজ পরিবর্তনের অবদানের জন্য নারী নেটওয়ার্ক তৈরি করার জন্য অসাধারণ ভাবে সহযোগিতা করে আসছে ।
এশিয়ান ইউনিভার্সিটি ফর উইমেনে প্রদত্ত স্কলারশীপ ফান্ডটি মিতসুবিশি ফুসো’র কর্পোরেট স্যোশাল রেসপনসিবিলিটি তথা সামাজিক দায়বদ্ধতার কার্যক্রম “ফুসোকিডস” কর্তৃক অর্থায়িত । “ফুসোকিডস” এর উদ্দেশ্য হলো বিশ্বব্যাপী তরুনদের প্রভাবিত করা , যাতে তারা তাদের লক্ষিত সম্ভাবনার ধারে যথাযথভাবে পৌছতে পারে ,সেজন্য সহযোগিতা করা । বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান হিসেবে মিতসুবিশি ফুসো শুধুমাত্র তাদের উৎপাদন,বাণিজ্যিক বিপনন নেটওয়ার্ক ও ব্যবসা পরিচালনা করেনা, পাশাপাশি বিভিন্ন স্পন্সরশীপ কার্যক্রম,দূর্যোগময় পরিস্থিতিতে ত্রান বিতরন,স্কলারশীপ প্রদান ও অনুদান প্রদান সহ বিভিন্ন অনন্য কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে । মিতসুবিশি ফুসো কর্পোরেট স্যোশাল রেসপনসিবিলিটি তথা সামাজিক দায়বদ্ধতার কার্যক্রমে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ ।
এশিয়ান ইউনিভার্সিটি ফর উইমেনের শিক্ষা কার্যক্রমের সহযোগিতার বেশীর ভাগই বেসরকারী ও কর্পোরেট প্রতিষ্ঠান ও ব্যক্তিদের শিক্ষার প্রতি তাদের সহযোগিতা ও দায়বদ্ধতার মাধ্যমে পরিচালিত হয়ে আসছে। এশিয়ান ইউনিভার্সিটি ফর উইমেনে মিতসুবিশি ফুসো’র কর্পোরেট স্যোশাল রেসপনসিবিলিটি তথা সামাজিক দায়বদ্ধতার কার্যক্রম “ফুসোকিডস” এর অনন্য এই স্পন্সরশীপ কার্যক্রম বেসরকারী ও কর্পোরেট পার্টনারশীপের মাধ্যমে নারী শিক্ষার প্রতি তাদের দায়বদ্ধতাকে তরুণদের মধ্যে একটি ইতিবাচক প্রভাব তৈরি করবে এবং নতুন দিগন্ত উন্মোচিত করবে। পাশাপাশি এশিয়ান ইউনিভার্সিটি ফর উইমেন সেবার মাধ্যমে নেতৃত্ব তৈরি ও বিকাশের জন্য, পিছিয়ে পড়া নারীদের মধ্য হতে শিক্ষার মাধ্যমে আলোকিত করে তাদের সাহসী হয়ে উঠে সমাজ সংস্কারে অবদান রাখার জন্য গড়ে তোলবে ।
এশিয়ান ইউনিভার্সিটি ফর উইমেন (এ.ইউ ডব্লিউ)
২০০৮ সালে চট্টগ্রামে এশিয়ান ইউনিভার্সিটি ফর উইমেন (এ.ইউ ডব্লিউ) যাত্রা শুরু করে । বিশ্ববিদ্যালয়টি এতদঅঞ্চলের প্রথম শিক্ষা প্রতিষ্ঠান যেটি আর্ন্তজাতিক পর্যায়ে নারীদের শিক্ষা ও নেতৃত্ব উন্নয়ন ও বিকাশে অবদান রাখছে ,যার শেকড় রয়েছে এশিয়ার জনগণের আকাঙ্খা ও প্রত্যাশা । বর্তমানে বিশ্বের ২০ টি দেশের মেয়েরা এশিয়ান ইউনিভার্সিটি ফর উইম্যান (এ.ইউ ডব্লিউ) এ অধ্যায়ন করছে ।এই বিশ্ববিদ্যালয়টি এতদঅঞ্চল তথা এশিয়ার নারীদের নারী নেতৃত্ব,উদ্যোক্তা এবং সমাজ পরিবর্তনের অবদানের জন্য নারী নেটওয়ার্ক তৈরি করার জন্য অসাধারণ ভাবে সহযোগিতা করে আসছে । পাশাপাশি এটি এমন সব নারীদের জন্য কাজ করছে ,যাদের মধ্যে রয়েছে অসাধারণ শিক্ষার সম্ভাবনা, সাহসী মনোভাব এবং সকল প্রকার অন্যায় অবিচারের বিরুদ্ধে গিয়ে সমাজ বির্নিমানে নিজেদের তৈরি করার অপার আগ্রহ । এই বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রীদের মধ্যে বেশীর ভাগই হলো তাদের পরিবারের ১ম সন্তান যে বিশ্ববিদ্যালয় পর্যন্ত পড়াশোনা করেছে । বিশ্ববিদ্যালয়ের ৯৮% ছাত্রী বিশ্বের ১০০% বৃত্তি বা প্রায় ১০০% বৃত্তি নিয়ে পড়া লেখা করে আসছে । এশিয়ান ইউনিভার্সিটি ফর উইম্যান (এ.ইউ ডব্লিউ) এর বেশির ভাগ ছাত্রী তাদের নিজ নিজ দেশে বেসরকারী ক্ষেত্রে সুনামের সাথে কাজ করে আসছে । ২৫% ছাত্রী উচ্চতর শিক্ষার জন্য সুযোগ গ্রহন করেছে। এই বিশ্ববিদ্যালয় হতে স্নাতক ডিগ্রী প্রাপ্ত ছাত্রীরা বা ইতিপূর্বে অধ্যয়নরত ছাত্রীরা বিশ্বের বড় বড় নামী দামি বিশ্ববিদ্যালয় যেমন:- স্ট্যানফোর্ড, অক্সফোর্ড, কলম্বিয়া, ব্র্যান্ডে, সারে বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির সুযোগ পেয়েছে ।

About bdsomoy