আমরা ইফতারের রাজনীতি করি না, গণতন্ত্রের রাজনীতি করি : ড. কামাল হোসেন

গণফোরামের সভাপতি ড. কামাল হোসেন বলেছেন, আমরা ইফতারের রাজনীতি করি না, গণতন্ত্রের রাজনীতি করি। আর এখানে কোনো রাজনৈতিক বেশ ধরিনি। সবাইকেই দাওয়াত করেছি। কিন্তু কে এখানে এলো, আর কে ওখানে গেল সেটা আমি জানতেও চাই না, শুনতেও চাই না। রোববার রাজধানীর রাজমনি ঈশা খাঁ হোটেলে গণফোরাম আয়োজিত ইফতার মাহফিলে এসব কথা বলেন ড. কামাল হোসেন।

ইফতার মাহফিলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতিনিধি হিসেবে অংশ নিয়ে আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য কর্নেল (অব.) ফারুক খান বলেন, এই মহতি অনুষ্ঠানে আওয়ামী লীগকে দাওয়াত করার জন্য আমি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পক্ষ থেকে গণফোরামকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানাই। এখানে আমি আসার আগে প্রধানমন্ত্রী আমাকে জানিয়েছেন, তিনি তাঁর ব্যক্তিগত এবং স্বাস্থ্যগত কারণে উপস্থিত থাকতে পারছেন না। প্রধানমন্ত্রী আমাকে তাঁর পক্ষ থেকে এবং বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের নেতাদের পক্ষ থেকে পাঠিয়েছেন। একই সঙ্গে আপনাদের মাহে রমজানের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।

ফারুক খান বলেন, আজকের এই ইফতার মাহফিলে আমরা দোয়া করব আল্লাহ যেন আমাদের সবাইকে আরো ভালোভাবে রাষ্ট্র পরিচালনা করতে এবং দেশের জনগণের জন্য কাজ করার তৌফিক দান করেন।

ইফতার মাহফিলে প্রথম টেবিলে গণফোরাম, বিএনপি ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শরিক দলসহ দেশের বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের জ্যেষ্ঠ  নেতাদের নিয়ে আসন গ্রহণ করেন ড. কামাল হোসেন। ইফতার শুরুর প্রায় পাঁচ মিনিট আগে উপস্থিত হন আওয়ামী লীগের নেতা ফারুক খান। এ সময় ড. কামাল হোসেনসহ উপস্থিত বিভিন্ন দলের নেতারা ফারুক খানকে স্বাগত জানান এবং কুশল বিনিময় করেন। পরে ড. কামাল হোসেনের সামনের চেয়ারে বসেন ফারুক খান।

অন্যদিকে ড. কামাল হোসেনের বাম পাশের চেয়ারে বসেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. আবদুল মঈন খান এবং ডান পাশে নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না। এ ছাড়া ওই টেবিলে বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন ও সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলালও বসে ইফতার করেন।

ইফতার মাহফিলে অন্যদের মধ্যে কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সাধারণ সম্পাদক হাবিবুর রহমান তালুকদার, বিপ্লবী ওয়ার্কাস পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক, বিকল্পধারা বাংলাদেশের একাংশের সাধারণ সম্পাদক শাহ আহমেদ বাদল, জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ার মিলু চৌধুরী, গণফোরাম নেতাদের মধ্যে দলের নির্বাহী সভাপতি অধ্যাপক আবু সাইয়িদ ও অ্যাডভোকেট সুব্রত চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক ড. রেজা কিবরিয়া, প্রেসিডিয়াম সদস্য সাংসদ মোকাব্বির খান, জগলুল হায়দার আফ্রিক, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোশতাক আহমেদ, আমিন আহমেদ আফসারীসহ নেতারা অংশ নেন।

এ ছাড়া, অর্থনীতিবিদ রেহমান সোবহান, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, বিশিষ্ট আইনজীবী ব্যারিস্টার মঈনুল হোসেনও ইফতার মাহফিলে অংশ নেন।

Please follow and like us:

About bdsomoy