৫শ’ যাত্রী নিয়ে হিজলায় বিকল গ্রিনলাইন ওয়াটার বাস

ঢাকা থেকে বরিশালে ফেরার পথে হিজলার ধূলিয়ায় আটকা পড়েছে দিবা সার্ভিসের এমভি গ্রিনলাইন-২ লঞ্চ (ওয়াটার বাস)। যান্ত্রিক ত্রুটির কারণে এ সমস্যা দেখা দিয়েছে বলে জানিয়েছেন বরিশাল নৌ-থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বেল্লাল হোসেন। তিনি জানান, সকালে পাঁচ শতাধিক জন যাত্রী নিয়ে ঢাকার সদরঘাট থেকে বরিশালের উদ্দেশে রওয়ানা দেয় এমভি গ্রিনলাইন-২ নামের দিবা সার্ভিসের লঞ্চটি। দুপুরে হিজলার ধূলখোলায় পৌঁছালে এতে যান্ত্রিক ত্রুটি দেখা দেয়। এরপর তা বিকল হয়ে পড়লে যাত্রীরা আটকা পড়েন।

খবর পেয়ে নৌ-পুলিশ ও বিআইডব্লিউটিএ’র তৎপরতায় তিনটি নৌযানকে যাত্রীদের আনার জন্য ঘটনাস্থলে পাঠানো হয়েছে। পাশাপাশি এরইমধ্যে যাত্রীদের জন্য স্পিডবোটযোগে খাবার পাঠানো হয়েছে। এদিকে গ্রিনলাইনের যাত্রীরা জানান, মাস্টারের অসাবধান চালানোর কারণে লঞ্চের সুকানি ভেঙ্গে যায়। এসময় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ওয়াটার বাসটি ডুবোচরে আটকে যায়।

এ বিষয়ে বরিশাল বিআইডব্লিউটিএ’র নৌ-নিরাপত্তা ও ট্রাফিক বিভাগের উপ-পরিচালক আজমল হুদা সরকার মিঠু জানান, সকাল ৮টায় ৫৫৬ যাত্রী নিয়ে বরিশালের উদ্দেশে রওনা দিয়ে বেলা পৌনে ১টার দিকে হিজলার ধূলিয়া নামক জায়গায় এসে লঞ্চটির সুকানির সমস্যার কারণে বিকল হয়ে যায়। পরে ধূলিয়া নামক লঞ্চঘাট সংলগ্ন একটি চরে আটকে পড়ে ওয়াটার বাসটি।

লঞ্চটিতে থাকা কয়েকজন বিদেশিসহ সব যাত্রীদের উদ্ধারের জন্য বিকেল ৪টার দিকে এমভি রাজপাখি, এমভি জনতা ও এমভি সোনালী নামক তিনটি লঞ্চ ঘটনাস্থলের উদ্দেশে পাঠানো হয়েছে। যেখানে নৌ-পুলিশ, জেলা প্রশাসন ও বিআইডব্লিউটিএ’র প্রতিনিধিরা রয়েছেন। আশা করা যায়, নিরাপদভাবে যাত্রীদের বরিশালে আনা সম্ভব হবে। এদিকে বরিশাল থেকে ঢাকার উদ্দেশে যেসব যাত্রীদের এ লঞ্চে যাওয়ার কথা ছিলো তারাও পড়েছেন চরম বিপাকে।

About bdsomoy