ব্রেকিং নিউজ

আমিরাতে ভিসা বন্ধের ৫ বছর পূর্ণ হল

সংযুক্ত আরব আমিরাতে ভিসা বন্ধের পাঁচ বছর পূর্ণ হল। আমিরাত সরকার যেমন ভিসা বন্ধের কারণ বলেনি তেমনি বন্ধ ভিসা কবে চালু হবে তা-ও বলেনি। ভিসা বন্ধের কারণে প্রবাসীদের সমস্যার শেষ হচ্ছে না। তবে বাংলাদেশ সরকার, আমিরাতের কমিউনিটি এবং সাধারণ প্রবাসীদের পক্ষ থেকে বিভিন্ন উপায়ে ভিসা চালুর জন্য তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছে।
সরকার আমিরাত সরকারের কাছে বহুবার ভিসা চালুর জন্য অনুরোধ করেছেন। শ্রম এবং পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে ভিসা চালুর চেষ্টা হচ্ছে বলে একাধিকার বলা হয়েছে; যা আমরা গণমাধ্যম থেকে জানতে পেরেছি। আমিরাতের সঙ্গে আলোচনার কথা উল্লেখ করে দেশের একাধিক মন্ত্রী ফেসবুকে পোস্ট দিয়েছেন। শুধু তাই নয়, একজন মন্ত্রী ফেসবুকে জানিয়েছেন আলোচনা ফলপ্রসূ হয়েছে। গত মে মাসে এক মন্ত্রী দুবাই সফর করে জানান, ভিসা চালুর সম্ভাবনা আছে; কিন্তু এখন পর্যন্ত ভিসা চালু হয়নি।

আমিরাতের প্রবাসী কমিউনিটি থেকে নানা উদ্যোগ নেয়া হয়েছে ভিসা চালুসহ আমিরাত সরকারের কাছে বাংলাদেশকে পজেটিভ দেশ হিসেবে উপস্থাপনের জন্য। সেই অনুযায়ী ২০১৪ এবং ২০১৫ সালে দুবাই সোশ্যাল ক্লাবের নেতৃত্বে প্যারেডে অংশ নেয় শতাধিক প্রবাসী। ২০১৬ সালে আমিরাতের ৪৫তম জাতীয় দিবসে ৪৫ পাউন্ডের কেক কেটে আলোচনা অনুষ্ঠান, জাতীয় দিবসের পিকনিকসহ জাতীয় দিবসে নানা আয়োজনের মাধ্যমে বাংলাদেশকে উপস্থাপনের চেষ্টা করেছে একাধিক সামাজিক সংগঠন।
এছাড়া সাধারণ প্রবাসীরা আগের চেয়ে অনেক সচেতন। আমিরাতে বাংলাদেশি প্রবাসীদের অপরাধপ্রবণতা অনেক কমেছে। আমিরাত প্রবাসীরা এখন নিজেদের বাংলাদেশের প্রতিনিধি হিসেবে বুঝতে শিখেছে। আমিরাতের আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল এবং আমিরাতের প্রতি প্রচুর পরিমাণে ভালোবাসা প্রকাশের পরও অজানা কারণে ভিসা বন্ধ রয়েছে। আমাদের আর কত ভালোবাসা দেখালে ভিসা সমস্যার সমাধান হবে তা-ও জানা নেই। দেশ থেকে আমিরাতে আসার জন্য অপেক্ষায় আছে অনেক বেকার যুবক। ভিসা বন্ধ থাকায় প্রবাসীরাও রয়েছেন নানা সমস্যায়। ভিসা চালু না হলেও অন্তত যারা আমিরাতে আছেন তাদের ভিসা ট্রান্সফারের সুযোগ হলে খুব ভালো হতো। শুধু বাংলাদেশিদের জন্য ভিসা ট্রান্সফার বন্ধ রয়েছে।
বিভিন্ন জনের মতে, প্রবাসীদের অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডের জন্য ভিসা বন্ধ রয়েছে। সেক্ষেত্রে প্রশাসনিক ব্যবস্থা নেয়া যেতে পারে। আমিরাতের আইনের প্রয়োগ বিশ্বব্যাপী প্রশংসনীয়। আমিরাত সরকার অপরাধ বন্ধ করতে ভিসা বন্ধ রাখবে তা সত্যি কেমন বেমানান। প্রবাসীদের অপরাধজনিত কারণে ভিসা বন্ধ রেখেছে আমিরাত এ কথার মাধ্যমে আমিরাতের প্রশাসনিক ব্যর্থতা প্রমাণের কোনো যুক্তি নেই। ভিসা কী কারণে বন্ধ রয়েছে তা একমাত্র আমিরাত সরকারই ভালো জানে। প্রবাসীদের দোষারোপ করা উচিত হবে বলে মানা যায় না। বরং আমাদের সরকারকে কূটনৈতিক তৎপরতা বাড়াতে হবে।
দেশের লাখো পরিবার চলে এদেশের প্রবাসীদের উপার্জিত টাকায়। বাংলাদেশের অর্থনীতির চাকা সচল রয়েছে প্রবাসীদের পাঠানো রেমিট্যান্সের মাধ্যমে।
বাংলাদেশ সরকারের কাছে আবেদন জানাই, প্রয়োজন হলে কূটনৈতিক পদ্ধতি পরিবর্তন করে বা কূটনৈতিক তৎপরতা বৃদ্ধি করে ভিসা চালু বা ট্রান্সফার প্রক্রিয়ার ব্যবস্থা করুন।

Please follow and like us:

About bdsomoy