মঙ্গলবার, মে ২১, ২০২৪
প্রচ্ছদইন্টারভিউশ্রমিক-পুলিশ সংঘর্ষ, আশুলিয়ায় ২০ কারখানা ছুটি

শ্রমিক-পুলিশ সংঘর্ষ, আশুলিয়ায় ২০ কারখানা ছুটি

ডেস্ক রিপোর্ট (বিডি সময় ২৪ ডটকম)

আশুলিয়ার জিরানী এলাকায় শ্রমিক পুলিশ সংঘর্ষ ও ধাওয়া- পাল্টা ধাওয়া হয়েছে। এ সময় পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে বেশ কয়েক রাউন্ড টিয়ারশেল ও রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে। এতে কমপক্ষে অর্ধশতাধিক শ্রমিক আহত হয়।

এছাড়াও অপ্রীতিকর পরিস্থিতি এড়াতে ওই এলাকার ২০টি পোশাক কারখানায় ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে।

শনিবার বেলা ১১টার দিকে আশুলিয়ার জিরানী এলাকার মাস্তি নাছা নামক একটি পোশাক কারখানার শ্রমিকরা বেতন ভাতা বৃদ্ধিসহ বিভিন্ন দাবিতে বিক্ষোভ করলে এ ঘটনা ঘটে।

শ্রমিক সূত্র জানায়, সকালে আশুলিয়ার জিরানী এলাকার মাস্তি নাছা গার্মেন্টের শ্রমকিরা কারখানায় এসে বেতন-ভাতা বৃদ্ধি, ছাঁটাই বন্ধ, মালিকপক্ষের ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসী দিয়ে পোশাক শ্রমিকদের ওপর নির্যাতন বন্ধসহ বিভিন্ন দাবিতে কারখানার ভেতরে বিক্ষোভ শুরু করে।

বিক্ষোভের একপর্যায়ে শ্রমকিরা কারখানা থেকে বের হয়ে নবীনগর-কালিয়াকৈর মহাসড়ক অবরোধ করে।

খবর পেয়ে শিল্প পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে শ্রমিকদের মহাসড়ক থেকে সরিয়ে দিতে চাইলে উভয়পক্ষের মধ্যে বাকবিতণ্ডার এক পর্যায়ে শুরু হয় সংঘর্ষ। প্রায় ঘণ্টা খানেক ধাওয়া- পাল্টা ধাওয়ার পর ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ এসে শ্রমিকদের ওপর লাঠিচার্জ, টিয়ারশেল ও রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এতে অর্ধশতাধিক পোশাক শ্রমিক আহত হয়। আহতদেরকে বিভিন্ন হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।

এছাড়াও এ ঘটনায় ওই এলাকার প্রায় ২০টি পোশাক কারখানা ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে।

এব্যাপারে আশুলিয়া শিল্প পুলিশের পরিচালক মুস্তাফিজুর রহমান জানান, মাস্তি নাছা পোশাক কারখানার শ্রমিকরা বিভিন্ন দাবিতে মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করলে টিয়ারশেল, রাবার বুলেট ও লাটিচার্জ করে তাদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়া হয়।

এছাড়ও যে কোনো অপ্রীতিকর পরিস্থিতি এড়াতে ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করে রাখা হয়েছে।  তবে এ ঘটনার পর জিরানী এলাকার প্রায় ২০টি পোশাক কারখানায় ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে বলে জানান তিনি।

আরও পড়ুন

সর্বশেষ