মঙ্গলবার, এপ্রিল ২৩, ২০২৪
প্রচ্ছদআরো খবর......রক্তের ফোঁটা থেকে জন্ম নিল হুবহু ইঁদুর!

রক্তের ফোঁটা থেকে জন্ম নিল হুবহু ইঁদুর!

ডেস্ক রিপোর্ট (বিডি সময় ২৪ ডটকম)

একটি ইঁদুরের মাত্র এক ফোঁটা রক্ত থেকে হুবহু আরেকটি ইঁদুর তৈরি করতে পেরেছেন জাপানের গবেষকেরা। রাইকেন বায়োরিসোর্স সেন্টারের গবেষকেরা ক্লোন পদ্ধতি ব্যবহার করেছেন। এক খবরে এ তথ্য জানিয়েছে বিবিসি অনলাইন।
‘বায়োলজি অব রিপ্রোডাকশন’ সাময়িকীতে প্রকাশিত নিবন্ধে গবেষকেরা জানিয়েছে, ইঁদুর ক্লোন করতে তারা দাতা ইঁদুরের লেজ থেকে ‘সার্কুলেটিং ব্লাড সেল’ বা বিশেষ রক্ত কোষ সংগ্রহ করেছিলেন। ইঁদুর ক্লোনিংয়ের ক্ষেত্রে অস্থি মজ্জা ও কিডনি থেকে কোষ নিয়েও ক্লোন করা হয়।
গবেষকেরা জানিয়েছেন, রক্ত কোষ ক্লোন প্রক্রিয়ায় জন্মানো মেয়ে ইঁদুরটি স্বাভাবিক জীবনকাল পার করেছে এবং স্বাভাবিক বাচ্চা প্রসব করেছে। রক্তকোষ ব্যবহার করে তাঁরা হুবহু ৬০০ টি ইঁদুর জন্মাতে পেরেছেন।
‘সার্কুলেটিং ব্লাড সেল’ ব্যবহার করে ক্লোনিং করা যায় কিনা তা নিয়ে পরীক্ষা করছিলেন গবেষকেরা। গবেষকেরা জানিয়েছে, তাঁদের পরীক্ষা সফল হয়েছে এবং ভবিষ্যতে এ ক্লোনিং প্রক্রিয়ায় দুর্লভ প্রজাতির ইঁদুরের ক্লোনিং করা সম্ভব হবে এবং বিলুপ্তি থেকে রক্ষা করা যাবে। ভবিষ্যতে গৃহপালিত প্রাণীর ক্লোনিং করে উন্নত প্রাণী তৈরির লক্ষ্য তাঁদের।
গবেষকেরা জানিয়েছেন, এ ধরনের ক্লোনিং পদ্ধতিতে তৈরি হয়েছিল প্রথম সফল স্তন্যপায়ী প্রাণী ‘ডলি’ নামের একটি ভেড়া।
এর আগে চলতি বছরের মার্চ মাসে জাপানের আরেকদল বিজ্ঞানী ক্লোন ইঁদুর থেকে ক্লোন করার কথা জানিয়েছিলেন। এ সংক্রান্ত গবেষণাপত্রটি সেল স্টেম সেল সাময়িকীর ৭ মার্চ সংখ্যায় প্রকাশ করা হয়। লাইভসায়েন্সের এক খবরে বলা হয়, একটি ইঁদুর থেকে ক্লোনিংয়ের মাধ্যমে জন্ম দেওয়া হয় আরেকটি ইঁদুরের। পরে ওই ক্লোন ইঁদুর থেকে আবার ক্লোন করা হয়। ক্লোনিংয়ের ইতিহাসে এ ঘটনাকে বিজ্ঞানীরা বড় ধরনের সাফল্য বলছেন। এই জ্ঞান ও অভিজ্ঞতা কাজে লাগিয়ে খামার কিংবা সংরক্ষণ করার উদ্দেশ্যে অধিকতর উন্নত প্রাণীরও জন্ম দেওয়া যেতে পারে বলেই মনে করেন তাঁরা।

আরও পড়ুন

সর্বশেষ