মঙ্গলবার, এপ্রিল ২৩, ২০২৪
প্রচ্ছদখেলার সময়ইমরানের বিরুদ্ধে বল বিকৃতির অভিযোগ

ইমরানের বিরুদ্ধে বল বিকৃতির অভিযোগ

বল বিকৃতি বিতর্ক যেন শেষ হতেই চাইছে না। ইংল্যান্ডের প্রাক্তন ক্রিকেটার বব উইলিসের পর এই নিয়ে বোমা ফাটালেন পাকিস্তানের প্রাক্তন ক্রিকেটার আমির সোহেল।
চ্যাম্পিয়নস ট্রফিতে হারের হ্যাটট্রিকের পর বাইরে-ভেতরে সমালোচনায় জেরবার পাকিস্তান ক্রিকেট নিয়ে একটি চ্যানেলে আলোচনায় বসেছিলেন পাকিস্তানের তিন প্রাক্তন ক্রিকেটার। সেখানেই বিশ্বকাপ জয়ী পাক দলের অন্যতম সদস্য সোহেল বলেন, “পরিষ্কার একটা কথা বলতে চাই। আমাদের এই সত্যিটার মুখোমুখি হতেই হবে। পাকিস্তান ক্রিকেটের এই দুরবস্থার জন্য দায়ী ইমরান খান।”

 

 

বিশ্বকাপ জয়ী অধিনায়কের বিরুদ্ধে সোহেলের এ রকম মন্তব্য শুনে তাজ্জব হয়ে যান ওই অনুষ্ঠানে থাকা আরও দুই প্রাক্তন পাকিস্তান ক্রিকেটার জাহির আব্বাস এবং ইউনিস খান।

 

কিন্তু সোহেল থামেননি। বলে যান, “ইমরানই আমাদের বোলারদের বল বিকৃত করতে উৎসাহ দিয়ে গিয়েছে। এই অভ্যাসের জন্য আমাদের ক্রিকেট সংস্কৃতি ধাক্কা খেয়েছে। যার জেরে এখন আমরা খুব ভাল নতুন বলের বোলার তৈরি করতে পারছি না। এমনকি নতুন বলটা ভালো করে খেলাও শিখছে না আমাদের ওপেনাররা।”
সোহেলের মন্তব্য ছড়িয়ে পড়ার পর থেকেই তীব্র প্রতিক্রিয়া শুরু হয়ে যায় বিভিন্ন সোশ্যাল সাইটে। প্রায় সবার আক্রমণের লক্ষ্যই ছিলেন সোহেল। কারো কারো প্রশ্ন, আকরাম-ওয়াকারদের না হয় বাদই দেয়া গেল, কিন্তু তার পরেও তো অনেক ভালেঅ ফাস্ট বোলার এসেছে পাকিস্তানে। তা হলে কেন সোহেলের এই অভিযোগ? অনেকে আবার মনে করছেন, আমির সোহেলের এই বিবৃতির পেছনে রাজনৈতিক অভিসন্ধিও আছে।

 

 

এদিকে আবার হারের ধাক্কায় বিধ্বস্ত পাকিস্তানের ক্রিকেটারদের অনেকেই দেশে ফিরতে ভয়ে সিঁটিয়ে রয়েছেন। পাক বোর্ডের একটি সূত্র জানাচ্ছে, আব্দুল রহমান, কামরান আকমল, ওয়াহাব রিয়াজ, আসাদ শফিক আর মুহাম্মদ ইরফানই শুধু রবিবার রাতে লন্ডন থেকে সরাসরি পাকিস্তানে উড়ে আসছেন।

 

টিমের বাকি ক্রিকেটাররা পরে দেশে ফিরবেন। কোচ ডেভ হোয়াটমোর এবং বাকি কোচিং স্টাফও এখন পাকিস্তানে ফিরছেন না।

 

পাক প্লেয়ারদের মধ্যে কয়েক জন লিগ ক্রিকেট খেলার নামে ইংল্যান্ডেই কাটাতে চান। বাকিরা পরে ছোট ছোট দলে আগেভাগে কিছু না জানিয়ে দেশে ফিরবেন। যাতে সাধারণ মানুষের ক্ষোভের মুখে পড়তে না হয়।
এর আগে যখনই পাকিস্তান এভাবে কোনো সিরিজে ব্যর্থ হলে পাক মিডিয়া আর সাধারণ মানুষ তীব্র ক্ষোভ দেখিয়েছেন। যার প্রভাব পড়েছে প্লেয়ারদের উপরও। এবার সেই চেনা আতঙ্কে রয়েছেন শুধু পাক প্লেয়াররাই নন, ম্যানেজমেন্ট স্টাফেরও অনেকেই।

 

জুলাইয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে বতর্মান দল থেকে বাদ যেতে পারেন কামরান আকমল, ইমরান ফারহাত, শোয়েব মালিকরা। কোপ পড়তে পারে কোচ ডেভ হোয়াটমোরের উপরও।
এই সময়ে হাল ধরতে প্রেসিডেন্ট জাকা আশরাফকেও পাচ্ছে না পাকিস্তান বোর্ড। মে-তে তার নির্বাচন নিয়ে অভিযোগের পর আদালতের নির্দেশে তিনি প্রেসিডেন্ট পদ থেকে নির্বাসিত।

আরও পড়ুন

সর্বশেষ