বৃহস্পতিবার, এপ্রিল ২৫, ২০২৪
প্রচ্ছদখেলার সময়চাপা পড়ে যাচ্ছে বিপিএল'র নানা অনিয়ম

চাপা পড়ে যাচ্ছে বিপিএল’র নানা অনিয়ম

BPL SPECIALস্পট ফিক্সিং কেলেঙ্কারিতে চাপা পড়ে যাচ্ছে বাংলাদেশের ঘরোয়া টি-টোয়েন্টি আসর বিপিএল- এর নানা অনিয়ম। বরাবরের মতই এক ফ্রাঞ্জাইজি মালিকের দাবি, কোনো বকেয়া নেই তার। অথচ খোঁজ নিয়ে জানা যায় বকেয়া টাকা পাবার আশায় প্রায় এক বছরেরও বেশি সময় ধরে ঘুরছেন অনেকে। ফায়হাম ইবনে শরীফের প্রতিবেদন।

গণমাধ্যম কর্মীদের সমালোচনায় করে ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটর্সরের মালিক সেলিম চৌধুরী বলেন, সাংবাদিকরা তার কাছে অর্থ দাবি করেছিল তাদের নিয়ে ভালো প্রতিবেদন করবে বলে। এরকম দম্ভোক্তিই প্রথম নয়, এর আগে বাংলাদেশের সাবেক এক ক্রিকেটার, যিনি আন্তর্জাতিক পর্যায়ে দেশকে প্রতিনিধিত্ব করেছেন তাকে নিয়েও কটাক্ষ করতে দ্বিধা করেননি বিপিএল-এর দুই আসরের চ্যাম্পিয়ন ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটর্স এর ফ্রাঞ্চাইজি মালিক।

এর আগে ঘোষণা দিয়েছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড- বিসিবি’তে বকেয়ার অতিরিক্ত টাকা পড়ে রয়েছে তার। দৃঢ় কন্ঠে জানিয়েছেন, পকেটের টাকা খরচ করে, ক্রিকেটের স্বার্থেই বিপিএল-এর সঙ্গে সম্পৃক্ত হয়েছেন তিনি।
তবে খোঁজ নিয়ে জানা যায় ভিন্ন কথা। এরই মধ্যে বিপিএল-এর প্রথম আসরে ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটর্স- এর জনসংযোগের কাজ করা প্রতিষ্ঠান ফোরথট পিআরের এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর ইকরাম মাঈন জানান, টাকা পাবার জন্য উকিল তারা নোটিশ দিয়ে রেখেছে তাদের।

তাদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায় দীর্ঘ ছয় মাস টাকা পাবার আসায় নানা রকম দেনদরবার করেও, আশার আলো না দেখায় আইনের শরণাপন্ন হয়েছেন তারা। আর এতদিন পরও টাকা পাবার কোনো সম্ভাবনা না দেখায়, এবার তাদের প্রস্তুতি আদালতের দ্বারস্থ হবার।

কিন্তু এতকিছুর পরও বিপিএল-এর ফ্রাঞ্চাইজিরা কিন্তু, নিজেদের মত বিভিন্ন বিষয়ে ব্যাখ্যা দিয়েই যাচ্ছেন। এরই মধ্যে বিসিবি দৃঢ় পদক্ষেপ নেয়ার ঘোষণা দিয়েছে। কিন্তু তারপরও ক্রিকেটের বনসাই ও বিতর্কিত এই সংস্করণ নিয়ে কি বোধোদয় হবে ক্রিকেট সংশ্লিষ্টদের।

আরও পড়ুন

সর্বশেষ