মঙ্গলবার, মে ২১, ২০২৪
প্রচ্ছদদেশজুড়ে৮৭ শতাংশ তরুণ ক্যান্সার জেনেও ধূমপান করে

৮৭ শতাংশ তরুণ ক্যান্সার জেনেও ধূমপান করে

দেশে ধূমপায়ীর সংখ্যা বাড়ছে। গত এক বছরে কিশোর ও তরুণ ধূমপায়ী বেড়েছে ১১ শতাংশ। গত বছরের ৫৭ শতাংশ থেকে এবার বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৬৮ শতাংশ। ২৩ মে বিকালে জাতীয় প্রেসক্লাবে ধূমপানবিরোধী সংগঠন ‘ক্যাম্পেইন ফর ক্লিন এয়ার’ পরিচালিত বাংলাদেশে তামাকের প্রভাব সংক্রান্ত জরিপের রিপোর্টে এ তথ্য প্রকাশ করা হয়েছে। জরিপ প্রকাশ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু। জরিপে অংশ নেয়া ৬২ শতাংশের মতে, দেশে নারী ধূমপায়ীর সংখ্যা বাড়ছে। কিশোর ও তরুণ ধূমপায়ীর ৯৮ শতাংশই সিগারেট পান করে। অন্যদিকে এই সময়ে দেশে মোট ধূমপায়ী বেড়েছে ৭ শতাংশ। এর ফলে ৪১ শতাংশ থেকে বেড়ে মোট ধূমপায়ীর হার দাঁড়িয়েছে ৪৮ শতাংশে। চলতি বছরের মে মাসে র‌্যানডম পদ্ধতিতে ৫০০ জনের ওপর এই জরিপ চালায় সংগঠনটি। জরিপে অংশগ্রহণকারী সবাই রাজধানী ঢাকা, রংপুর ও কুষ্টিয়া জেলার বিভিন্ন এলাকার বাসিন্দা। জরিপ প্রকাশ অনুষ্ঠানের বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন বাংলাদেশ ক্যান্সার সোসাইসির মহাসচিব অধ্যাপক ডা. শেখ গোলাম মোস্তফা ও জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ ডা. মুহাম্মদ আবদুস সবুর। সভাপতিত্ব করেন নাট্যকার ও সংগঠনের আহ্বায়ক অরণ্য আনোয়ার। অনুষ্ঠানে তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘প্রকাশ্য ধূমপান আইন কার্যকর নেই। মূলত আইনের সীমাবদ্ধতার কারণেই তা কার্যকর করা যাচ্ছে না। জরিমানাকে নেবে, কে রিসিট দেবে ইত্যাদি সমস্যা রয়েছে। এই আইনের সংস্কার করতে হবে। আমি আপনাদের এই সুপারিশগুলো সংসদে নিয়ে যাব ও এর বাস্তবায়নের চেষ্টা করব। জরিপ প্রতিবেদন থেকে আরও জানা যায়, জরিপে অংশ নেয়া ৯৪ শতাংশের ধারণা তরুণরা আগের চেয়ে বেশি ধূমপানের দিকে ঝুঁকছে। জরিপে অংশ নেয়া ৬৩ শতাংশের ধারণা, সিগারেটের সহজ লভ্যতা ও ১৯ শতাংশের ধারণা বন্ধুদের দ্বারা প্রভাবিত হয়ে তারা ধূমপানে আসক্ত হয়েছে। জরিপের তথ্য অনুযায়ী, ধূমপায়ীদের ৮৭ শতাংশ ধূমপানে ক্যান্সার হয়- এটা জেনেই ধূমপান করে। এছাড়া প্রতিদিন ৫০ টাকা পর্যন্ত ধোঁয়ায় উড়িয়ে দেন সবচেয়ে বেশি ধূমপায়ী। ধূমপান নিবারণে প্রতিবেদনে বেশকিছু সুপারিশ করা হয়। সুপারিশগুলো- হলো ধূমপানের ক্ষতিকর দিকগুলোর ব্যাপক প্রচার চালাতে হবে, সিগারেটের শুল্ক বাড়াতে হবে, প্যাকেটের গায়ে ক্ষতিকর দিকের ছবি ছাপাতে হবে, কিশোরদের কাছে সিগারেট বিক্রি নিষিদ্ধ করতে হবে। কিশোর ও তরুণ সমাজকে ধূমপান থেকে দূরে রাখতে সিগারেটের চতুর্থ ¯¬াব বাতিলের দাবি করে আন্তর্জাতিক বাজারের সঙ্গে মিল রেখে ১০ শলাকা সিগারেটের প্যাকেটের মূল্য কমপক্ষে ৫০ টাকা করার সুপারিশ করা হয়।

আরও পড়ুন

সর্বশেষ