সোমবার, এপ্রিল ২২, ২০২৪
প্রচ্ছদখেলার সময়শ্রীলঙ্কাকে ৩ উইকেটে হারিয়েছে বাংলাদেশ

শ্রীলঙ্কাকে ৩ উইকেটে হারিয়েছে বাংলাদেশ

বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্বের ম্যাচে শ্রীলঙ্কাকে ৩ উইকেটে হারিয়েছে বাংলাদেশ। এবারের বিশ্বকাপ থেকে আগেভাগেই বাদ পড়ে গেলেও এই ম্যাচ জিতে ২০২৫ চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির আশা বাঁচিয়ে রাখলো টাইগাররা। টানা ছয় হারের পর এই ম্যাচ জিতে বিশ্বকাপের পয়েন্ট টেবিলে ৭ নম্বরে উঠে এসেছে বাংলাদেশ। সমান ম্যাচে সমান পয়েন্ট থাকলেও নেট রান রেটে পিছিয়ে থাকায় শ্রীলঙ্কার অবস্থান আটে। চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে খেলতে হলে দুদলকেই আটের মধ্যে থাকতে হবে। তাই সামনের ম্যাচটা এই দুদলের জন্যই বেশ গুরুত্বপূর্ণ।

আজ সোমবার (৬ নভেম্বর) টসে জিতে শ্রীলঙ্কাকে ব্যাটিংয়ে পাঠায় বাংলাদেশ। ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুতেই উইকেট হারায় শ্রীলঙ্কা। ৪ রান করা কুশল পেরেরাকে ফেরান শরিফুল ইসলাম। পাখির মতো উড়ে বাঁদিকে দাঁড়ানো প্রথম স্লিপ ফিল্ডারের সামনে থেকে দুর্দান্ত ক্যাচ নেন মুশফিক। ১২তম ওভারে এসে দ্বিতীয় উইকেটের দেখা পায় সাকিব।

৩০ বলে ১৯ রান করা কুশল মেন্ডিসকে ফেরান সাকিব। নিসাঙ্কাকে ফেরান বিশ্বকাপে প্রথম ম্যাচ খেলতে নামা তানজিম সাকিব। ৩৬ বলে ৪১ রান করে আউট হন তিনি। এরপর ৬৩ রানের জুটি গড়েন সাদিরা সামারাবিক্রমা ও চারিথ আশালাঙ্কা।

৪২ বলে ৪১ রান করে সামারাবিক্রমা মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের হাতে ক্যাচ দিয়ে প্যাভিলিয়নে ফেরেন। এরপরই আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে প্রথমবারের মতো ‘টাইমড আউট’ হন অ্যাঞ্জেলা ম্যাথুস। একপ্রান্ত আগলে রেখে সেঞ্চুরির দেখা পান আসালাঙ্কা। ওয়ানডে ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় সেঞ্চুরি তুলে ১০৫ বলে ১০৮ রান করে তানজিম হাসান সাকিবের বলে লিটনের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন তিনি। বাংলাদেশের পক্ষে ৮০ রানে তিন উইকেট নেন তানজিম সাকিব।

২৮০ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে দলীয় ১৭ রানে আউট হয়ে প্যাভিলিয়নে ফেরেন তামিম জুনিয়র। ৫ বলে ৯ রান করে সাজঘরের পথ ধরেন তিনি। সেখান থেকে শান্তকে সাথে নিয়ে ইনিংস মেরামতের চেষ্টা করছিলেন অপর ওপেনার লিটন দাস।

কিন্তু দলীয় ৪১ রানে লিটনও ফেরেন ২৩ রান করে। দুটি উইকেটই শিকার করেন দিলশান মাধুশঙ্কা। তবে চারে ব্যাটিংয়ে নামা অধিনায়ক সাকিব আল হাসানকে নিয়ে দারুণ জুটি গড়েন নাজমুল হোসেন শান্ত। ১৪৯ বলে ১৬৯ রানের দারুন জুটি গড়েন তারা। তবে ইনিংসের ৩১ দশমিক ১ ওভারে অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুসের শিকার হন সাকিব। আউট হওয়ার আগে ২ ছক্কা ও ১২টি চারের মাধ্যমে ৬৫ বলে ৮২ রান করেন অধিনায়ক।

সেঞ্চুরির পথে থাকা শান্তও পাননি সেঞ্চুরির দেখা। তাকেও বোল্ড করে সাজঘরে ফেরান ম্যাথুস। আউট হওয়ার আগে ১০১ বলে ৯০ রান করেন তিনি। কোনো ছক্কা না মেরে ১২টি চারের মাধ্যমে তিনি এ রান করেন।

এরপর দলের হাল ধরার চেষ্টা করেন মাহমুদউল্লাহ ও মুশফিক। তবে বেশিদূর যেতে পারেননি তারা। ১৩ বলে ১০ রান করে দিলশান মাদুশঙ্কার বলে বোল্ড হয়ে ফিরে যান তিনি। দলকে জিতিয়ে ফিরতে পারেননি মাহমুদউল্লাহও। ১টি ছক্কা ও ৩টি চারের মাধ্যমে ২৩ বলে ২২ রান করে থিকসানার বলে বোল্ড হয়ে ফেরেন তিনি। মেহেদী হাসান মিরাজও ফেরেন তার পরপরই। ৫ বলে ৩ রান করে থিকসানার শিকার হন তিনি।

তবে তাওহিদ হৃদয় ও তানজিম হাসান সাকিবের হাত ধরেই জয়ের দেখা পায় বাংলাদেশ। ২ ছক্কায় ৭ বলে ১৫ রান করে অপরাজিত থাকেন হৃদয়। তানজিম সাকিব করেন ৬ বলে পাচ রান। ইনিংসের ৪১ দশমিক ১ ওভারে বাংলাদেশের দরকার ছিলো ২ রান। ম্যাথুসের বিপক্ষে ব্যাটিংয়ে ছিলো তানজিম। শর্ট লেন্থের ডেলিভারিটি তানজিমের পায়ে লেগে চলে যায় বাউন্ডারির বাইরে। ফলে ৮ দশমিক ১ ওভার বাকি থাকতেই ৩ উইকেটের জয় তুলে নেয় টাইগাররা।

আরও পড়ুন

সর্বশেষ